default-image

 টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচে খেলেননি বিরাট কোহলি। তবু সে ম্যাচ জিতে নিউজিল্যান্ডকে ধবলধোলাই করতে কষ্ট হয়নি ভারতের। চোট পেয়ে ভারতে ফিরেছেন রোহিত। তাতেই যেন ভেঙে পড়ল দল। নিউজিল্যান্ডের কাছে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রতিটিতেই হেরেছে ভারত। আজও ৫ উইকেটে হেরেছে ভারত। ১৭ বল হাতে রেখে ম্যাচ শেষ করে এসেছেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ও টম ল্যাথাম।

২১ বছর পর এশিয়ার বাইরে কোন ভারতীয় উইকেটরক্ষক সেঞ্চুরি পেয়েছেন আজ। কিন্তু লোকেশ রাহুলের ১১২ রানের ইনিংসের পরও ভারতের স্কোর ৩০০ পেরোয়নি। টপ অর্ডারের ব্যর্থতা লোকেশ রাহুল ও শ্রেয়াস আইয়ার ঢেকে দিয়েছিলেন। ১০০ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি গড়ে আইয়ার (৬২) ফিরে গেলেও রাহুল পান্ডেকে নিয়ে আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছিলেন। মাত্র ১৬ ওভারে ১০৭ রানের জুটিটা অবশ্য শেষ হয়েছে হতাশাজনকভাবে। হামিশ বেনেটের টানা দুই বলে ফিরেছেন রাহুল ও পান্ডে (৪২)। দুজনই ছক্কা মারতে গিয়েই ফিরেছেন। ২৬৯ রানে এই জোড়া ধাক্কা সামলানো সম্ভব হয়নি ভারতের পক্ষে। ২৯৬ পর্যন্ত টানতে পেরেছেন জাদেজা-সাইনিরা।

তাড়া করতে নেমে লক্ষ্যটাকে একদম ছোট বানিয়ে দিয়েছেন মার্টিন গাপটিল। প্রথম থেকেই ইচ্ছেমতো বল সীমানাছাড়া করছিলেন। মাত্র সপ্তম ওভারেই ফিফটি পেরিয়েছে নিউজিল্যান্ড। মাত্র ২৯ বলে ৫ চার ও ৪ ছক্কায় ফিফটি পেয়েছেন গাপটিল। ১০৬ রানে প্রথম উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। ৪৬ বলে ৬৬ রান করে ফিরেছেন গাপটিল। অধিনায়ক কেন উইলিয়ামস (২২) অবশ্য খুব বেশিক্ষণ টেকেননি। রস টেলর (১২) ও হেনরি নিকোলস (৮০) ৩ রানের মধ্যে ফিরে যাওয়ায় একটু বিপদে পড়েছিল নিউজিল্যান্ড। দলকে ২২০ রানে রেখে নিশামও বিদায় নিয়েছিলেন।

শেষ ১০ ওভারে ৭৪ রান দরকার ছিল নিউজিল্যান্ডের। কাজটা একদম সহজ বানিয়ে দিয়েছেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। ল্যাথামকে (৩৪ বলে ৩২) সঙ্গী করে রান তাড়াকে মামুলি বানিয়ে দিয়েছেন। ভারতীয় পেসার ও স্পিনারদের মাঠের যেকোনো প্রান্তে আছড়ে ফেলেছেন। ২১ বলে ফিফটি ছুঁয়েছেন। ৬ চার ও ৩ ছক্কায় ২৮ বলে ৫৮ রানে অপরাজিত ছিলেন গ্র্যান্ডহোম।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন