২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালে ছক্কা মেরে ভারতের জয় নিশ্চিত করেন ধোনি। তাঁর সেই শট।
২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালে ছক্কা মেরে ভারতের জয় নিশ্চিত করেন ধোনি। তাঁর সেই শট।ছবি: টুইটার

‘ধোনি, ফিনিশেজ অব ইন স্টাইল, আ ম্যাগনিফিসেন্ট স্ট্রাইক ইন টু দ্য ক্রাউড, ইন্ডিয়া লিফট দ্য ওয়ার্ল্ড কাপ আফটার টুয়েন্টি এইট ইয়ার্স। দ্য পার্টি স্টার্ট ইন দ্য ড্রেসিং রুম অ্যান্ড ইন্ডিয়ান ক্যাপ্টেন হু প্লেড অ্যাবসুলেটলি ম্যাগনিফিসেন্ট ইন দ্য নাইট অব ফাইনাল।’

ধারাভাষ্যকক্ষে কথাগুলো বলার সময় গলা কাঁপছিল রবি শাস্ত্রীর। ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের বাইশ গজে তখন উৎসবের নাচ শুরু করেছেন ভারতের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। ভারতের ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ের ‘সিগনেচার শট’ হয়ে রয়েছে নুয়ান কুলাসাকেরাকে মারা ধোনির সেই ছক্কা।

গত বছর ভারতের এক ওয়েবসাইট ধোনির সেই ছক্কাকে নৈবেদ্য দিয়েছিল এভাবে ‘যে ছয় জিতিয়েছে বিশ্বকাপ’। কথাটা পছন্দ হয়নি গৌতম গম্ভীরের। ফাইনালে ৯৭ রানের ইনিংস খেলা গম্ভীর বকে দিয়েছেন সেই ওয়েবসাইটকে। বিশ্বকাপ কেউ একা জেতায়নি, টুইট করেছিলেন গম্ভীর।

বিজ্ঞাপন

ভারতের সাবেক এই ওপেনার ও রাজনীতিবিদ বিশ্বকাপ জয়ের ১০ বছর পূর্তিতে সাক্ষাৎকার দেন টাইমস অব ইন্ডিয়াকে। সেই ছক্কার প্রসঙ্গ নিয়ে গম্ভীর বলেছেন, ‘একটা ছক্কা আমাদের বিশ্বকাপ জেতায়নি।’

সেদিন মাহেলা জয়াবর্ধনের সেঞ্চুরিতে আগে ব্যাট করা শ্রীলঙ্কা ৬ উইকেটে ২৭৪ রান তুলেছিল। তাড়া করতে নেমে ১১৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়েছিল ভারত। যুবরাজ সিংয়ের আগে অধিনায়ক ধোনিকে পাঁচে ব্যাট করতে পাঠান কোচ গ্যারি কারস্টেন।

৭৯ বলে অপরাজিত ৯১ রানে ভারতকে বিশ্বকাপ জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন ধোনি, যার শেষ শট ওই ছক্কা। ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীরা বুকে আগলে রেখেছেন এই শট। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে যেকোনো জায়গায় ২০১১ বিশ্বকাপের প্রসঙ্গ উঠলে লং অন দিয়ে মারা ধোনির সেই ছক্কার কথা উঠবেই।

সে তুলনায় গম্ভীরের ৯৭, যুবরাজের ২১ রানের সঙ্গে ২ উইকেট কিংবা জহির খানের ২ উইকেট নিয়ে কথা হয় কমই।

আজ ভারতের ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ের ১০ বছর পূর্তিতে সংবাদমাধ্যমকে গম্ভীর ধোনির ছক্কা নিয়ে বলেন, ‘একা কেউ বিশ্বকাপ জিতিয়েছে বলে মনে করেন? একজন খেলোয়াড় বিশ্বকাপ জেতাতে পারলে ভারত এখন পর্যন্ত সব কটি বিশ্বকাপই জিতত। ভারতে দুর্ভাগ্যজনকভাবে ব্যক্তিপূজার প্রাধান্য বেশি। আমি নিজে কখনো এসব বিশ্বাস করি না। দলীয় খেলায় ব্যক্তির কোনো জায়গা নেই। দলকে সাহায্য করাই মুখ্য। জহির খানের অবদান ভোলা সম্ভব? ফাইনালে তার প্রথম স্পেলটা, যেখানে টানা তিন মেডেন নিয়েছিল? অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে যুবরাজ কী করেছিল, সেটাও কি ভুলে যাওয়া সম্ভব? কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে শচীন টেন্ডুলকারের সেঞ্চুরি? তাহলে শুধু একটা ছক্কা নিয়ে কথা হয় কেন?’

গম্ভীর এ নিয়ে একটি তুলনাও দেন। তাঁর মতে, ‘শুধু একটা ছক্কা যদি বিশ্বকাপ জেতায় তাহলে যুবরাজ ভারতকে ছয়টা বিশ্বকাপ জিতিয়েছে বলে মনে করি। কারণ, সে এক ওভারে ছয় ছক্কা মেরেছিল (২০০৭ টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে)। অথচ কেউ যুবরাজকে নিয়ে কথা বলে না। ২০০৭–এ সে টুর্নামেন্ট–সেরা ছিল (আনুষ্ঠানিকভাবে শহীদ আফ্রিদি) এবং ২০১১ বিশ্বকাপেও। অথচ আমরা শুধু একটা ছক্কা নিয়ে কথা বলি।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন