এ বছরের ডিসেম্বরে নিউজিল্যান্ড সফরে যাবে পাকিস্তান।
এ বছরের ডিসেম্বরে নিউজিল্যান্ড সফরে যাবে পাকিস্তান। ফাইল ছবি: রয়টার্স

করোনার বিরতি কাটিয়ে ক্রিকেট প্রথম ফিরেছে ইংল্যান্ডে। একে একে দেশটিতে সফর করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়া। ওয়েস্ট ইন্ডিজে হয়েছে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টির আসর ক্যারিবিয়ান ক্রিকেট লিগ। এখন চলছে আইপিএল। যদিও ভারতে করোনা পরিস্থিতি খুব একটা ভালো নয় বলে টুর্নামেন্টটি হচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। অস্ট্রেলিয়া সফর করছে নিউজিল্যান্ডের মেয়েদের দল। ইংল্যান্ডে খেলছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মেয়েরা।

এবার ক্রিকেট ফিরতে যাচ্ছে নিউজিল্যান্ডে। আর সেটা পুরোদমেই। এ বছরের নভেম্বর থেকে আগামী বছরের মার্চ পর্যন্ত নিউজিল্যান্ড সফরে যাবে চারটি দল—ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশ। এই পাঁচ মাসে চারটি দলের বিপক্ষে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে ২১টি ম্যাচ খেলবে নিউজিল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশের সফর দুটি আয়োজনে এখনো সবুজ সংকেত দেয়নি নিউজিল্যান্ডের সরকার। তবে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের (এনজেডসি) প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলেছেন এ দুটি দলের সফরও চূড়ান্ত হয়ে যাবে।

default-image
বিজ্ঞাপন

নিউজিল্যান্ডের সরকার গত সপ্তাহেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তানের সফর অনুমোদন দিয়েছে। সঙ্গে অবশ্য একটি শর্ত জুড়ে দিয়েছে তারা—দল দুটিকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশের সফর চূড়ান্ত হলেও একই শর্ত বহাল থাকবে। সব দলই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন করবে ক্রাইস্টচার্চে। সেখানে তারা লিংকন ইউনিভার্সিটতে এনজেডসির হাই পারফরম্যান্স সেন্টারে অনুশীলনের সুবিধা পাবে।

অবশেষে নিউজিল্যান্ডে ক্রিকেট ফিরতে যাচ্ছে বলে খুব খুশি এনজেডসির প্রধান নির্বাহী হোয়াইট, ‘আমি (ক্রিকেট ফেরার) এই ঘোষণা দিতে পেরে রোমাঞ্চিত। গত ছয় মাস আমরা ক্রিকেট ফেরানো নিয়ে একটা অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে কাটিয়েছি।’ নিউজিল্যান্ড সরকারকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন হোয়াইট, ‘জটিল এই সময়ে সব প্রক্রিয়ায় আমাদের সাহায্য করার জন্য নিউজিল্যান্ড সরকারের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।’

নিউজিল্যান্ডে ক্রিকেট ফিরবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সফর দিয়ে। ২৭ নভেম্বর অকল্যান্ডে প্রথম টি-টোয়েন্টি দিয়ে শুরু হবে সফর। সিরিজের দ্বিতীয় ও তৃতীয় ম্যাচ দুটি তাউরাঙ্গাতে ২৯ ও ৩০ নভেম্বর। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই টেস্টের একটি সিরিজ খেলবে নিউজিল্যান্ড। প্রথম ম্যাচ ৩ ডিসেম্বর শুরু হবে হ্যামিল্টনে। দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টটি শুরু হবে ১১ ডিসেম্বর, ওয়েলিংটনে।

বিজ্ঞাপন

পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হবে ১৮ ডিসেম্বর। প্রথম ম্যাচটি তারা খেলবে অকল্যান্ডে। ২০ ডিসেম্বর হ্যামিল্টনে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি। নেপিয়ারে শেষ ম্যাচটি ২২ ডিসেম্বর। এরপর দুই টেস্টের সিরিজ। প্রথম ম্যাচটি ২৬ ডিসেম্বর শুরু হবে তাউরাঙ্গাতে। ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট শুরু ৩ জানুয়ারি।

অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশের সফর নিউজিল্যান্ড সরকার এখনো অনুমোদন না দিলেও সূচি প্রকাশ করেছে এনজেডসি। অস্ট্রেলিয়া শুধু পাঁচ ম্যাচের একটি টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে। সিরিজটি ২২ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে ৭ মার্চ শেষ হওয়ার কথা। আর বাংলাদেশের খেলার কথা তিন ম্যাচের একটি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ। আগে হবে ওয়ানডে, ১৭ মার্চ শুরু হয়ে সিরিজটি শেষ হওয়ার কথা ২০ মার্চ। এরপর ২৩ মার্চ শুরু হয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজটি শেষ হওয়ার কথা ২৮ মার্চ।

মন্তব্য পড়ুন 0