নিউজিল্যান্ড জানাল, অন্য দলের সঙ্গে বাংলাদেশও আসবে

বিজ্ঞাপন
default-image

করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর পর এ বছর আর মাঠে নামা হয়নি বাংলাদেশ দলের। সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে শ্রীলঙ্কা সফরের ব্যাপারে জোর আলোচনা চলছে, তবে এখনো চূড়ান্ত কিছু জানায়নি দুই বোর্ড। আগামী বছরের শুরুর দিকের সিরিজগুলো সময়মতো হবে কিনা, এই মুহূর্তে সেটি জোর দিয়ে বলাও কঠিন। তবে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট জানিয়েছে, সামনের ঘরোয়া মৌসুমে সফরে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। শুধু বাংলাদেশ নয়; পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও ওয়েস্ট ইন্ডিজও নিউজিল্যান্ড সফরে আসবে বলে জানানো হয়েছে।

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের প্রধান নির্বাহী ডেভ হোয়াইট সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, করোনা মহামারির মধ্যে সফরকারী দলের খেলোয়াড়দের জন্য যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করা নিয়ে এখনো কাজ চালিয়ে যাওয়া হলেও সফর ঠিক সময়মতোই মাঠে গড়াবে। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি-মার্চে ৩টি ওয়ানডে ও ৩টি টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়ার কথা বাংলাদেশ দলের। করোনায় এ বছর কিউইদের বাংলাদেশ সফর (আগস্ট-সেপ্টেম্বর), বাংলাদেশ দলের নিউজিল্যান্ড সফর (সেপ্টেম্বরে) স্থগিত হলেও আগামী বছরের ফেব্রুয়ারির সফরসূচি নিয়ে অবশ্য প্রশ্ন ওঠেনি।

ডেভ হোয়াইট আত্মবিশ্বাসী, বছরের শুরুতে তাঁদের ঘরোয়া মৌসুমে কয়েকটি সিরিজ সময় মতো হয়ে যাবে। সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেছেন, ‘ফোনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড আমাদের নিশ্চিত করেছে। পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশও আসবে। ৩৭ দিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট চলবে।’ সব কিছু চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত সফরসূচি নিয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হননি তিনি। করোনা মহামারির মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল ইংল্যান্ড সফরে গিয়ে স্বাস্থ্যবিধি নিয়ে যেসব ব্যবস্থা পেয়েছে তেমন কিছুই আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন হোয়াইট। জীবাণুমুক্ত পরিবেশ তৈরি করে ম্যাচ ভেন্যুতেই খেলোয়াড়দের থাকার ও অনুশীলনের ব্যবস্থা করেছে ইংল্যান্ড।

বিশ্বের হাতে গোনা যে কটি দেশ করোনা মহামারিকে খুব ভালোভাবে জয় করতে পেরেছে, নিউজিল্যান্ড তার অন্যতম। তবুও বাইরের কোনো দেশ থেকে নিউজিল্যান্ড গেলে ১৪দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। নিউজিল্যান্ডের নাগরিকেরা অবশ্য স্বাভাবিক জীবনযাপনই করছেন। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও খেলা দেখতে মাঠে যেতে পারছেন না। সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার বাধ্যবাধকতা এখন নেই তাঁদের। ৫ মিলিয়ন মানুষের এ দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২২। আগামী বছরের শুরুতে পরিস্থিতি নিশ্চয়ই খেলার আরও অনুকূলে থাকবে। সফরকারী দলগুলোকে আতিথিয়েতা দিতে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট তাই আত্মবিশ্বাসী।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন