নিউজিল্যান্ড সিরিজের আগেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল চেয়েছিলেন ডমিঙ্গো

বাংলাদেশ দলের কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।ফাইল ছবি

নিউজিল্যান্ডের পর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ খেলার কথা ছিল বাংলাদেশের। তবে ইংল্যান্ডের সঙ্গে সে সিরিজ স্থগিত হয়ে গেছে আগেই। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে কিউইদের বিপক্ষেই তাই সর্বশেষ সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। নির্বাচকদের জন্যও তাই সিরিজটি হতে যাচ্ছে দল ঘোষণার আগে শেষ মুহূর্তের যাচাই-বাছাইয়ের একটা উপায়। তবে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলছেন, এই সিরিজের আগেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করতে পারলে সেটা হতো ‘সবচেয়ে ভালো’।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম চার ম্যাচই বাংলাদেশ খেলেছিল অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে। শেষ ম্যাচে এসেছিল দুটি পরিবর্তন। শামীম হোসেন ও শরীফুল ইসলামের জায়গায় খেলেন মোসাদ্দেক হোসেন ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে দলে ফিরেছেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে না থাকা মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস, আমিনুল ইসলামরা। স্বাভাবিকভাবেই তাই পরিবর্তন আসছে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে।

এই সিরিজ স্কোয়াডের সদস্যদের শেষ মুহূর্তের পর্যবেক্ষণ করার সুযোগ কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে ডমিঙ্গো বলেছেন, বিশ্বকাপের দল নিয়ে এরই মধ্যে ভালো একটা ‘ধারণা’ হয়েছে তাঁদের, ‘আমার মনে হয়, নিউজিল্যান্ড সিরিজ শেষ হওয়ার দু-এক দিন আগেই দল ঘোষণা করতে হবে (টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের)। আমার মনে হয়, কারা সে দলে থাকবে, সেটা নিয়ে ভালো একটা ধারণা আছে আমাদের। অবশ্য নিউজিল্যান্ড সিরিজের আগেই বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করা গেলে সেটা দারুণ হতো। তাতে খেলোয়াড়েরা আরেকটু ধাতস্থ হয়ে খেলতে পারত। বিশ্বকাপ দলে থাকা না থাকার শঙ্কা থাকত তাদের ওপর। তবে আমরা সেটা করতে পারছি না এখনই।’

নিউজিল্যান্ড সিরিজের আগে অনুশীলনে শামীম হোসেন, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম
ফাইল ছবি : প্রথম আলো

মুশফিক-লিটনরা ফিরলেও এখনো চোটের পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শেষ হয়নি তামিম ইকবালের। তামিমের ভবিষ্যত নিয়েও আপাতত কিছু বললেন না ডমিঙ্গো, ‘আমার নজর আসলে এবারের স্কোয়াডে যে ১৯ জন ক্রিকেটার আছে, তাদের নিয়েই। তামিম ফিট হয়ে উঠলেই তখন সেদিকে নজর দেব আমরা। আপাতত এটা নিয়ে খুব একটা ভাবিনি আমি।’

নিউজিল্যান্ড অবশ্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করেছে আগেই। বাংলাদেশ সফরে আসেননি সে দলের কেউই। সংযুক্ত আরব আমিরাতে অক্টোবরে শুরু হবে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এর আগে সেখানে আইপিএল হলেও প্রথম পর্বে বাংলাদেশের ম্যাচগুলো হবে ওমানে। সেখানেও ম্যাচগুলো হওয়ার কথা হাই স্কোরিংই। তবে অস্ট্রেলিয়ার মতো এবারও স্পিন-সহায়ক উইকেটেই হতে পারে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ।

প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর সঙ্গে তামিম ইকবাল
ফাইল ছবি : প্রথম আলো

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের আগেও ডমিঙ্গো বলেছিলেন, তিনি ‘স্পোর্টিং’ উইকেট চান। এবার বললেন, তাঁর চাওয়া ‘মিরপুরের স্বাভাবিক উইকেট’, ‘দুর্ভাগ্যজনকভাবে, আমি গ্রাউন্ডসম্যান নই। আমি ভালো উইকেটের আশায় আছি। তবে বছরের এ সময়ে আর্দ্রতা, বৃষ্টি মিলিয়ে অমন উইকেট বানানো কঠিন হবে অন্য সময়ের তুলনায়। তবে আমি ভালো উইকেটের আশা করছি। ভালো উইকেটে ব্যাটিং করে আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর গুরুত্বটা জানি আমরা। একই সঙ্গে জিতে আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর ব্যাপারটাও গুরুত্বপূর্ণ। আমার মনে হয়, মিরপুরের স্বাভাবিক উইকেট থাকবে, যেখানে ১৫০-১৬০ ভালো একটা স্কোর।’

বিশ্বকাপের আগে সিরিজ জেতাটা গুরুত্বপূর্ণ বলেও মনে করেন ডমিঙ্গো, ‘ব্যাটিংয়ের জন্য কন্ডিশন বেশ কঠিন ছিল। বড় স্কোরের দেখা পেলে অবশ্যই দারুণ হতো, তবে সেটা কন্ডিশনের ওপর নির্ভর করছে। আমার মনে হয়, বোলারদের আত্মবিশ্বাস ও জেতার মধ্যে থাকাটাও গুরুত্বপূর্ণ। আমরা দেশের মাটিতে খেলছি। বিশ্বকাপের আগে তাই আত্মবিশ্বাস নিয়েই খেলে যেতে চাই।’