বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কয়েক দিন আগে ধোনির কাছে নেতৃত্ব ফিরিয়ে দেওয়ার আগে রবীন্দ্র জাদেজাও চেন্নাই সুপার কিংসকে নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন। আর পাঞ্জাব ভরসা রেখেছে মায়াঙ্ক আগরওয়ালের ওপর। হয়তো তাঁদের ভেতর থেকেই ধোনি-কোহলির উত্তরসূরির খোঁজ পাবে ভারত। তবে সবাইকে ছাপিয়ে সাবেক পাকিস্তানি অধিনায়ক রশিদ লতিফের মনে ধরেছে ঋষভ পন্তের নেতৃত্বগুণ।

রশিদের কাছে মনে হয়েছে, সাদা বলের ফরম্যাটে ভারতের পরবর্তী অধিনায়ক হওয়ার প্রয়োজনীয় সব গুণ আছে পন্তের মাঝে। পন্তের দিল্লি যে এবার তেমন অসাধারণ মৌসুম কাটাচ্ছে, বলা যাবে না। তবে গতবার এই দিল্লিকেই প্লে-অফে তুলেছিলেন এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান।

default-image

নিজেও উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ছিলেন দেখেই কিনা, পন্তের প্রতি রশিদের দরদ যেন একটু বেশিই ঝরে পড়েছে। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে পন্তের নেতৃত্বগুণের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন রশিদ।

পন্তের মাঝে তিনজন সাবেক ভারতীয় অধিনায়কের ছায়া দেখতে পেয়েছেন সাবেক এই পাকিস্তানি অধিনায়ক, ‘লোকেশ রাহুল অধিনায়ক হিসেবে যথেষ্ট ভালো। সে গতবার পাঞ্জাব আর এবার লক্ষ্ণৌকে বেশ ভালোভাবেই নেতৃত্ব দিচ্ছে। কিন্তু আমার মনে হয় ভারতের পরবর্তী অধিনায়ক হিসেবে এমন একজনকে সুযোগ দেওয়া প্রয়োজন, যার বয়স কম। ঋষভ পন্তের মতন। সে যদি নিজের ফিটনেস বজায় রাখতে পারে, তাহলে সে ভারতের জন্য অমূল্য সম্পদ হতে পারে।’

default-image

অধিনায়ক হিসেবে পন্তের ব্যতিক্রমী চিন্তাধার আকৃষ্ট করেছে রশিদকে, ‘সৌরভ গাঙ্গুলী, মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন, মহেন্দ্র সিং ধোনির মতো খেলোয়াড়েরা বাকিদের চেয়ে আলাদা ছিলেন। তাঁরা ব্যতিক্রমী চিন্তাভাবনা করতেন। পন্তও অনেকটা সে রকম। ওর নিজস্ব চিন্তাভাবনা করার সামর্থ্য আছে। একটু ব্যতিক্রমী।’

তবে শুধু পন্তই নয়, তরুণদের মধ্যে গুজরাটের অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়তাকেও মনে ধরেছে রশিদের, ‘ও যদি নিয়মিত বল করতে পারে, তাহলে ভারতের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক হিসেবে হার্দিক পান্ডিয়াও ভালো করবে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন