বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের সফর বাতিল হওয়ায় পাকিস্তানের কী কী ক্ষতি হয়েছে, তার তালিকা লম্বাই হবে। সবচেয়ে বড় ক্ষতিটা সম্ভবত এই যে ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কা দলের বাসে সন্ত্রাসী হামলার পর অনেক দিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের স্বাদবঞ্চিত পাকিস্তানের মাটিতে যা-ও গত দু-তিন বছরে কিছু আন্তর্জাতিক ম্যাচ-সিরিজ হয়েছে, সেটি এখন আবার শঙ্কায় পড়ে গেল! এর পাশাপাশি আর্থিক ক্ষতি তো আছেই।

সে কারণেই কি না, মুদাসসর ব্যাংক গ্যারান্টির পরামর্শ দিচ্ছেন। সম্ভবত তাঁর ভাবনাটা এই যে ব্যাংক গ্যারান্টির ক্ষেত্রে পিসিবির ক্ষতি তো কমবেই, পাশাপাশি নিজেদের যে পরিমাণ অর্থ গচ্চা যাবে—সেটি বিবেচনায় নিয়ে পাকিস্তান সফর বাতিল করার আগে আরও তিন-চারবার ভাববে ইংল্যান্ড।

এরপর থেকে ইংল্যান্ডের সঙ্গে কোনো সফরের (স্বাগতিক হওয়ার) ক্ষেত্রে আগে আমাদের এটা নিশ্চিত করতে হবে যে আমরা ওদের কাছ থেকে ব্যাংক গ্যারান্টি নিয়ে নিচ্ছি।
ইংল্যান্ডের পাকিস্তান সফর বাতিল করার প্রেক্ষিতে মুদাসসর নজর

এই মুহূর্তে ইংল্যান্ডেরই শহর ম্যানচেস্টারে আছেন মুদাসসর। সেখান থেকে টেলিফোনে পাকিস্তানের এক্সপ্রেস নিউজে সাক্ষাৎকারে প্রথমে ইংল্যান্ডের প্রতি পিসিবির অবদানের কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন নজর, ‘আমরা কোভিডে মুষড়ে পড়া এক ইংল্যান্ড সফরে গিয়েছিলাম, ইসিবিকে বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতির হাত থেকে বাঁচিয়েছিলাম। আমাদের দলকে সেখানে তৃতীয় শ্রেণির একটা হোটেলে রাখা হয়েছিল, কিন্তু আমরা শুধু ইংল্যান্ড ক্রিকেটকে সাহায্য করার জন্যই সফরটা চালিয়ে গিয়েছিলাম।’

সেটির সঙ্গে এখন ইংল্যান্ডের সিদ্ধান্তের তুলনা করে নজর বলছেন, ইংল্যান্ডের বোর্ড অকৃতজ্ঞ! এরপর ইংল্যান্ডের সঙ্গে কোনো সিরিজের ক্ষেত্রে ব্যাংক গ্যারান্টির ওই পরামর্শটা দিলেন নজর, ‘আমাদের দরকারের সময়ে আমাদের সাহায্য করার বদলে অকৃতজ্ঞ ইংল্যান্ড পাকিস্তান সফর থেকে পিছিয়ে গেল। এরপর থেকে ইংল্যান্ডের সঙ্গে কোনো সফরের (স্বাগতিক হওয়ার) ক্ষেত্রে আগে আমাদের এটা নিশ্চিত করতে হবে যে আমরা ওদের কাছ থেকে ব্যাংক গ্যারান্টি নিয়ে নিচ্ছি।’

default-image

নিউজিল্যান্ড পাকিস্তানের মাটি থেকে না খেলেই চলে যাওয়ার পর পিসিবির নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান রমিজ রাজা ঘোষণার সুরে বলেছিলেন, আইসিসির সভায় নিউজিল্যান্ডের কাছে এর জবাব চাইবে পাকিস্তান। নজর বলছেন, ইংল্যান্ডকেও পিসিবির কোনো রকমের ছাড় দেওয়া উচিত হবে না। ‘পাকিস্তান সফর থেকে ইংল্যান্ডের সরে আসার সিদ্ধান্তে সবাই চমকে গেছে। এমনকি ইংলিশ সংবাদমাধ্যমও খুশি নয়। এই সুযোগটা নিয়ে আমাদের উচিত আইসিসিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জোর আওয়াজ তোলা।’

আর জোর আওয়াজ তোলার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ও এশিয়ার দেশগুলোরও পাকিস্তানের সুরে সুর মেলানোর আহ্বান জানালেন পাকিস্তানের জার্সিতে ৭৬ টেস্ট ও ১২২ ওয়ানডে খেলা নজর, পিসিবির এ (ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আইসিসিতে আওয়াজ তোলা) ক্ষেত্রে এশিয়ান দেশগুলোর সাহায্য নেওয়া উচিত। বাংলাদেশের মতো দেশগুলোর পাকিস্তানের পাশে দাঁড়ানো দরকার, কারণ ভবিষ্যতে এমন কিছু তাদের সঙ্গেও ঘটতে পারে।

পাকিস্তান থেকে এভাবে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের সরে যাওয়াতে ষড়যন্ত্র-তত্ত্বও খুঁজে নিচ্ছেন নজর, ‘পাকিস্তান ক্রিকেটকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে আলাদা করে ফেলার ষড়যন্ত্রে যোগ দিয়েছে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড!’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন