বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপের শুরুতে ফেবারিটের তালিকায় ছিল না অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তান। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ সময়ে এসে ফর্ম ফিরে পেয়েছে দুই দল। বিশ্বকাপে এখনো হারেনি পাকিস্তান। ওদিকে ইংল্যান্ডের কাছে হারের ধাক্কা সামলে টানা দুটি দাপুটে জয়ে সেমিফাইনালে এসেছে অস্ট্রেলিয়া। সেমিফাইনালেও সে ফর্ম ধরে রাখতে চায় অস্ট্রেলিয়া। সাহসী ক্রিকেট খেলে পাকিস্তানকে হারাতে চান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।

default-image

এ বিশ্বকাপে বেশ শক্তিশালী দল নিয়েই এসেছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু তাদের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান অ্যারন ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নারের ফর্মহীনতার কারণে অনেকেই তাঁদের গোনায় ধরছিল না। মূল দুই ব্যাটসম্যান ছন্দে না থাকলে সেটাই স্বাভাবিক। তবে সুপার টুয়েলভ যত গড়িয়েছে, ততই ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন দুই ওপেনারই। ফলে অস্ট্রেলিয়ার শক্তির জায়গা দলটির টপ অর্ডার।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের আগে এ নিয়ে কথা বলেছেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। প্রথমেই জানালেন তাঁদের ব্যাটিংয়ের গভীরতা নিয়ে, ‘আমাদের টপ অর্ডার অনেক শক্তিশালী। এই টপ অর্ডারকে সাহায্য করার জন্য আমাদের (মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান) স্বাধীনভাবে ব্যাটিং করতে হবে। আবার আমাদের দলে একজন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যানও আছে। ফলে আমার মনে হয়, আমাদের ব্যাটিং লাইনআপ যথেষ্ট ভালো।’

টপ অর্ডার কতটা ভালো করছে, সে প্রসঙ্গে ম্যাক্সওয়েল নিজের উদাহরণ টেনেছেন, ‘সুপার টুয়েলভে আমাদের পাঁচ, ছয় ও সাত নম্বর ব্যাটসম্যানরা ব্যাটিং করতে পারেনি বললেই চলে। এ থেকেই বোঝা যায়, আমাদের টপ অর্ডার কতটা ভালো খেলছে।’

বিশ্বকাপে অনেক দলই শুরুতে তেমন আগ্রাসী ব্যাটিং না করে উইকেট হাতে রেখে ইনিংসের শেষ দিকে রানের গতি বাড়াতে চেয়েছে। ম্যাক্সওয়েলরা এভাবে ব্যাট করতে চান না, ‘অনেক দলকেই দেখেছি, শুরুতে উইকেট ধরে রেখে শেষের দিকে রান তুলতে চায়। কিন্তু আমরা ইনিংসের শুরু থেকেই স্বাধীনভাবে খেলে পাওয়ারপ্লের সর্বোচ্চ ব্যবহার করে খেলার শুরুতেই প্রতিপক্ষকে চাপে ফেলে দিতে চাই।’

default-image

দুর্দান্ত ফর্ম নিয়েই এবারের বিশ্বকাপে এসেছেন ম্যাক্সওয়েল। সর্বশেষ আইপিএলে দারুণ খেলেছেন। টানা দুই বছর ব্যর্থ হওয়ার পর এ মৌসুমে ১৫ ম্যাচে ৪২.৭৫ গড়ে করেছেন ৫১৩ রান। কিন্তু বিশ্বকাপে এখনো ঝলক দেখাতে পারেননি। দোষ অবশ্য দেওয়া যাচ্ছে না। কারণ, বেশির ভাগ ম্যাচই দলের শুরুর ব্যাটসম্যানরাই শেষ করে দিচ্ছেন।

বাংলাদেশের বিপক্ষে ব্যাট করতে নেমে এক বলও খেলতে পারেননি তিনি, শূন্য রানে অপরাজিত ছিলেন অপর প্রান্তে।

বেশ কয়েক দিন ব্যাটিং করতে না পারায় আত্মবিশ্বাসের কোনো ঘাটতি হয়েছে কি না, এমন প্রশ্ন একপ্রকার উড়িয়েই দিলেন তিনি, ‘আমি অনেক সময় ধরে অনুশীলন করেছি। প্রায় আড়াই মাস ধরে আমি এখানে (সংযুক্ত আরব আমিরাত) আছি এবং আমি এখানকার কন্ডিশনের সঙ্গে খুব ভালোভাবেই পরিচিত। কয়েক দিন ব্যাট না করার আমার তেমন কোনো সমস্যাই হবে না। আমি আইপিএল খেলার সময় যে অবস্থায় ছিলাম, এখনো ঠিক সেই অবস্থাতেই আছি। আইপিএলে আমি খুব ভালোভাবে বল মারতে পারছিলাম এবং আমাকে যেভাবে দলের প্রয়োজন, সেভাবেই আমি সাহায্য করতে প্রস্তুত। আশা করি, আমার ব্যাট করার তেমন একটা দরকারও হবে না। যদি দরকারও হয়, আশা করি, আমি আবারও শূন্য রানেই অপর প্রান্তে অপরাজিত থাকব।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন