default-image

বিতর্কের সঙ্গে পাকিস্তান দলের বুঝি দারুণ সখ্য! নইলে বিতর্ক কেন এ দলটার পেছনে ছায়ার মতো লেগে থাকবে? বিশ্বকাপে পারফরম্যান্স বলার মতো না হলেও বিতর্কে সব দলের চেয়ে এগিয়ে পাকিস্তান। গত দুই সপ্তাহে দলটি কী কী বিতর্কিত কাণ্ড ঘটিয়েছে, চোখ বুলিয়ে নেওয়া যেতে পারে।


আর্থিক জরিমানা

বিশ্বকাপ শুরুর আগেই শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে জরিমানা করা হলো একসঙ্গে আট পাকিস্তানি খেলোয়াড়কে। সিডনিতে বন্ধুদের সঙ্গে রাতের খাবার খেতে গিয়েছিলেন শহীদ আফ্রিদি, আহমেদ শেহজাদসহ আরও ছয়জন। কিন্তু টিম হোটেলে তাঁরা ফেরেন টিম ম্যানেজমেন্টের বেঁধে দেওয়া নির্ধারিত সময়ের ৪৫ মিনিট পর। ‘দোষী’ ক্রিকেটারদের জরিমানা করা হয় ৩০০ অস্ট্রেলিয়ান ডলার।

আবারও আফ্রিদি

বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আবারও আফ্রিদিকে নিয়ে বিতর্ক। তাঁর বিরুদ্ধে এবারও দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ। তবে পাকিস্তানি অলরাউন্ডার দাবি করেন, তিনি ও তাঁর কয়েক সতীর্থ কেবল খেতেই গিয়েছিলেন, নাচতে যাননি! আফ্রিদি উষ্মা প্রকাশ করে বলেছেন, ‘কিচ্ছু ঘটেনি। আমরা খেয়েই ফিরে এসেছিলাম। আপনার হাতে যখন খবর থাকবে না, তখন মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে এ ধরনের গুজব ছড়াবে। ওই রাতে কিছুই হয়নি। রাতের খাবার খেতে গিয়েছিলাম। আমরা এখন অস্ট্রেলিয়ায়, ঠাট্টা কিংবা লারকানায় (পাকিস্তানের শহর‍) নয়।

ফিল্ডিং কোচের পদত্যাগ নাটক

এবারও বিতর্কের কেন্দ্রে আফ্রিদি। সঙ্গে আছেন শেহজাদ ও উমর আকমল। ভারতের বিপক্ষে পরাজয়ের হতাশা থেকে ফিল্ডিং কোচ গ্রান্ট লুডেনের সঙ্গে বাগ্‌বিতণ্ডায় জড়িয়েছিলেন এ তিন সিনিয়র খেলোয়াড়। রেগেমেগে তো লুডেন পদত্যাগই করতে চেয়েছিলেন। পিসিবি অবশ্য এ খবর নাকচ করে দিয়েছে।

প্রতীকী শেষকৃত্য

ভারত ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাজেভাবে পরাজয়ে ক্ষোভে ফুঁসছে পাকিস্তানি সমর্থকেরা। পাকিস্তানের অনেক জায়গায় আগুন দেওয়া হয়েছে আফ্রিদি-মিসবাহদের পোস্টারে। মুলতান শহরে তো আয়োজনই করা হলো প্রতীকী শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে। শামা বিবি নামের এক সমর্থক বললেন, ‘এবার আমরা সত্যি ভেবেছিলাম পাকিস্তান জিতবে (ভারতের বিপক্ষে)। আমরা এ ধরনের আর কিছু দেখতে চাই না।’

মঈনের ক্যাসিনো বিতর্ক

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচের আগে পাকিস্তান দলের প্রধান নির্বাচক মঈন খানকে দেখা গিয়েছিল ক্রাইস্টচার্চের এক জুয়ার আখড়ায় (ক্যাসিনো)! প্রশ্ন উঠেছে, সেখানে কেন গিয়েছিলেন মঈন? পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) চেয়ারম্যান শাহরিয়ার খান জানিয়েছেন, বিষয়টি তাঁর কাছে স্বীকারও করেছেন মঈন। পিসিবি প্রধান বলেছেন, ‘মঈন সেখানে যাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন। তবে তাঁর মতে তিনি স্ত্রী, বন্ধু ও বন্ধুপত্নীকে নিয়ে খেতে গিয়েছিলেন সেখানে। তিনি এখন তদন্ত কমিটির সামনে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করবেন।’ এ ঘটনার পর দেশে ফিরে আসতে বলা হয়েছে মঈনকে। তাঁর জায়গায় বর্তমান ম্যানেজার নাভেদ চিমা সফরকালীন নির্বাচক কমিটির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। তথ্যসূএ-এএফপি

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন