পিএসএল জৈব সুরক্ষা বলয় সঠিকভাবে মানা হয়নি।
পিএসএল জৈব সুরক্ষা বলয় সঠিকভাবে মানা হয়নি।ছবি: এফপি

অ্যালার্ম বেল সোমবারই বেজেছিল। অস্ট্রেলিয়ান স্পিনার ফাওয়াদ আহমেদ করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় ইসলামাবাদ ইউনাইটেড ও কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরসের ম্যাচ এক দিন পিছিয়ে দেওয়া হয়। এরপরই পিএসএলের সঙ্গে যুক্ত সব খেলোয়াড়, কোচ ও কর্মকর্তার করোনা পরীক্ষা করা হয়েছিল। ফাওয়াদের ঘটনাকে ব্যতিক্রম কিছু বলে ভেবে নিয়েছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। এ কারণেই একজন খেলোয়াড় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার পরও খেলা চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তারা।

সিদ্ধান্তটা যে কত ভুল ছিল, সেটা প্রমাণিত হতে মাত্র দুই দিন সময় লেগেছে। আজই আনুষ্ঠানিকভাবে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়েছে পাকিস্তানের ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ। এরই মাঝে করোনায় আক্রান্তের তালিকা আরও দীর্ঘ হয়েছে। সাত ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফের এক সদস্য করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর টনক নড়েছে পিসিবির। আজ এক বিবৃতি দিয়ে আপাতত লিগ স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে বোর্ড।

এভাবে লিগ আয়োজন করা, খেলোয়াড়দের করোনায় আক্রান্ত হওয়া এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে না পারায় পিসিবির দায়ই বেশি দেখছে লাহোর কালান্দার্স। পিসিবির তৈরি জৈব সুরক্ষাবলয় নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন ফ্র্যাঞ্চাইজির প্রধান নির্বাহী আতিফ রানা।

বিজ্ঞাপন
default-image

পিসিবির কিছু পদক্ষেপ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে আগেই। ফাওয়াদ আহমেদ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন গত শনিবার। আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ দেখা দিয়েছিল তাঁর ভেতর। কিন্তু সোমবারের আগে এ ব্যাপারে ইসলামাবাদ বা বোর্ড আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো বিবৃতি দেয়নি। এর আগে জৈব সুরক্ষাবলয়ের নিয়ম ভেঙেছিলেন কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরসের হেড কোচ ড্যারেন স্যামি এবং অধিনায়ক ওয়াহাব রিয়াজ। জৈব সুরক্ষার বাইরে গিয়ে তাঁরা দুজন দেখা করেন ফ্র্যাঞ্চাইজিটির স্বত্বাধিকারী জাভেদ আফ্রিদির সঙ্গে।

এ ঘটনায় দুজনকে কোনো শাস্তিই দেওয়া হয়নি। শুধু তিন দিনের জন্য সঙ্গনিরোধ থেকেই নিজেদের অপরাধের প্রায়শ্চিত্ত করেছেন স্যামি ও রিয়াজ। খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের থাকার অনুমতিও দিয়েছিল পিসিবি। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে তাঁদেরও হোটেলের বাইরে যাওয়া, এমনকি গ্যালারিতে বসে খেলা দেখার অভিযোগও উঠেছে। আতিফ রানা সব দিক থেকেই পিসিবির পেশাদারি মনোভাব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, ‘বোর্ডকে শুধু কাগজে-কলমে জৈব সুরক্ষাবলয় সৃষ্টি করলে হয় না। সেটা হোটেল ও ভেন্যুতে করে দেখাতে হয়। কিন্তু সেটা করা হয়নি। স্বাস্থ্যবিধি না মানায় খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের অবশ্যই জরিমানা করা উচিত ছিল পিসিবির।’

default-image

এমন কিছু হতে পারে ভেবে শুরু থেকে টুর্নামেন্ট আয়োজনের বিরোধী ছিল লাহোর। এখন টুর্নামেন্ট বেশ কিছু দুর এগিয়ে যাওয়ার পর এভাবে থামতে বাধ্য হওয়ায় খুবই বিরক্ত লাহোরের প্রধান নির্বাহী, ‘লাহোর কালান্দার্স আগেই পিসিবিকে অনুরোধ করেছিল করোনাভাইরাসের এই মহামারিতে যেন টুর্নামেন্ট আয়োজন না করা হয়। কিন্তু বোর্ড আমাদের কথা শোনেনি। এবং অন্যান্য ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে কথা বলে আয়োজন করেছে, এমন অবস্থায় দৃঢ়ভাবে সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত ছিল। কিন্তু (বোর্ড) অবহেলা করেছে।’

সোমবার ফাওয়াদের করোনা আক্রান্তের পর খেলা পেছানোর পরদিন নতুন করে দুজন বিদেশি খেলোয়াড়ের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা স্বীকার করেছিল পিসিবি। তখন নাম জানা না গেলেও পরে এঁদের একজন যে টম ব্যান্টন সেটা খেলোয়াড়ের টুইটার পোস্ট থেকে জানা গেছে। এ অবস্থায় লাহোরে পিএসএলের সব খেলা বাতিল করে করাচিতে সব খেলা আয়োজন করার পরিকল্পনা করছিল পিসিবি। কিন্তু নতুন করে আরও খেলোয়াড় আক্রান্ত হওয়ায় টুর্নামেন্টই স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। বর্তমান পরিস্থিতিতে সব খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাকে তাঁদের সম্মতিতে টিকা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে পিসিবি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন