পাকিস্তান বোর্ডের প্রশ্নের মুখে পড়তে যাচ্ছেন মিসবাহ

ইংল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট সিরিজে ভালো করতে পারেননি বাবর আজমরা।
ইংল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট সিরিজে ভালো করতে পারেননি বাবর আজমরা। ছবি: এএফপি
বিজ্ঞাপন

করোনার মধ্যে কত সতর্কতা মেনে, স্বাস্থ্যবিধি ঠিক করে সফরটা শেষ করেছে পাকিস্তান। ক্রিকেটে ফেরা হয়েছে তাতে, ইংল্যান্ডকে আবার পরে পাকিস্তানে ঘুরে যাওয়ার দাবি জানানোর ভিত্তিও গড়া গেছে। কদিন আগে শেষ হওয়ার সফর থেকে পাকিস্তানের প্রাপ্তি কম নয়।

কিন্তু মাঠের ক্রিকেটে প্রাপ্তি? সে হিসেবে গেলে পাকিস্তানকে হতাশই হতে হচ্ছে। তিন টেস্টের সিরিজে ইংল্যান্ডের কাছে পাকিস্তান হেরেছে ১-০ ব্যবধানে। আর তিন টি-টোয়েন্টির সিরিজ হয়েছে ১-১ ড্র। দুই সিরিজেই একটি করে ম্যাচ ফল দেখেনি বৃষ্টিবাধায়। মাঠের এমন পারফরম্যান্স স্বাভাবিকভাবেই আতশি কাচের নিচে পড়তে যাচ্ছে। পাকিস্তানের দৈনিক পত্রিকা ডনে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) চেয়ারম্যান এহসান মানি বলেছেন, কোচ মিসবাহ-উল-হকের কাছে দলের এমন পারফরম্যান্সের ব্যাখ্যা চাইবে পিসিবির কমিটি।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

গত বছরের অক্টোবরে পাকিস্তানের প্রধান কোচ ও প্রধান নির্বাচক—দুই দায়িত্বই নিয়ে এসেছিলেন মিসবাহ। তাঁর সহকারী হিসেবে এখন আছেন দুই কিংবদন্তি—ব্যাটিং কোচ ইউনিস খান, বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনিস। কিন্তু মিসবাহর ওভাবে দুই বড় দায়িত্ব নিয়ে আসা তো এক ধরনের ‘একনায়কতন্ত্র’ই। তাঁর দায়িত্ব পাওয়ার সময় থেকেই অনেকে সেটির বিরোধিতা করে আসছেন।

এই সিরিজের পর গুঞ্জন উঠেছে, প্রধান নির্বাচকের দায়িত্বটা মিসবাহর কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া হতে পারে। সেটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরব পাকিস্তানের কিংবদন্তি একজন ফাস্ট বোলার পেতে যাচ্ছেন, এমন গুঞ্জনও শোনা গেছে। পিসিবির সঙ্গে মিসবাহর এই বৈঠকে কি সেই ভাগ্যই নির্ধারিত হবে? ভবিষ্যৎ বলবে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
আমি দায়িত্বে থাকা লোককে ক্ষমতা দেওয়ায় বিশ্বাস করি, নির্দিষ্ট করে বললে সে কারণেই মিসবাহকে পুরো কর্তৃত্ব ও সহযোগিতা করা হয়েছিল। কিন্তু একই সঙ্গে তাঁকে দায়ও নিতে হবে।
এহসান মানি, পিসিবি চেয়ারম্যান

ইংল্যান্ড সিরিজে পাকিস্তানের হার নয়, হারের ধরনটাই বেশি প্রশ্নের মুখে ফেলছে মিসবাহকে। এই বছরের মে মাসেও টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকা পাকিস্তান সিরিজে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের সেভাবে আটকাতে পারেননি, তৃতীয় ম্যাচে ৫ রানে জেতার পথেও দলের পারফরম্যান্স খুব একটা স্বস্তি দেওয়ার মতো ছিল না।

এই মুহূর্তে টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে চতুর্থ স্থানে পাকিস্তান। টেস্টে সপ্তম, ওয়ানডেতে ষষ্ঠ। সব মিলিয়েই প্রশ্নের মুখে পড়তে যাচ্ছেন মিসবাহ। ডন পত্রিকায় মানি বলেছেন, ‘আমি দায়িত্বে থাকা লোককে ক্ষমতা দেওয়ায় বিশ্বাস করি, নির্দিষ্ট করে বললে সে কারণেই মিসবাহকে পুরো কর্তৃত্ব ও সহযোগিতা করা হয়েছিল। কিন্তু একই সঙ্গে তাঁকে দায়ও নিতে হবে। তাঁর মূল্যায়ন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে পিসিবির ক্রিকেট কমিটি দু-এক সপ্তাহের মধ্যে তাঁর সাক্ষাৎকার নেবে, যেখানে তাঁর কাছে দলের ও নিজের পারফরম্যান্সের ব্যাখ্যা চাওয়া হবে।’

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পাকিস্তান দলকে আরও ধারাবাহিক করতে মিসবাহ-ইউনিস-ওয়াকারের কোচিং প্যানেলের বাইরেও একটি ব্যবস্থাপনা দল রেখেছে পিসিবি। সেটি নিয়ে মানি বললেন, ‘এই সমস্যাটা মেটাতে এবং দল আর খেলোয়াড়দের ধারাবাহিকতা আনতে পিসিবি ছেলেদের দলের সঙ্গে একটি পেশাদার ব্যবস্থাপনা দল রেখেছে, যাঁদের আধুনিক ক্রিকেট নিয়ে ধ্যানধারণা অন্য যে কারও চেয়ে ভালো। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে পাকিস্তানকে ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলতে হলে কী কী লাগবে, সেটারও পরিষ্কার ধারণা আছে এই দলের।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন