বিজ্ঞাপন

পিসিবির চোখে, পিএসএল আয়োজন করার জন্য আবুধাবির কাছ থেকে বেশ কিছু ব্যাপারে ছাড় নিশ্চিত করা জরুরি ছিল। কারণ, সম্প্রচারের সঙ্গে জড়িত কর্মী ও কর্মকর্তাদের ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আনা হবে। এ দুই দেশ থেকে কারও সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা আছে। কিন্তু পিএসএল আমিরাতের কর্তৃপক্ষকে এ ব্যাপারে নিয়ম শিথিল করতে রাজি করিয়েছে। ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে যাঁরা যাবেন, তাঁদের ভাড়া করা বিমানে নেওয়া হবে। এ দুই দেশ থেকে আগতদের এখন আলাদা দুটি হোটেলে খেলোয়াড়দের চেয়ে দূরে ১০ দিন কোয়ারেন্টিন করতে হবে। আর খেলোয়াড় ও ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের সাত দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

এ মুহূর্তে বাংলাদেশে আছে শ্রীলঙ্কা দল। ২৩ মে থেকে তিন ওয়ানডের সিরিজ শুরু হবে। এ সিরিজ শেষে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার যারা পিএসএল খেলতে আগ্রহী, তাঁরা প্রথমে পাকিস্তানে যাবেন এবং লাহোর ও করাচি থেকে ভাড়া করা বিমানে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাবেন। উপমহাদেশে করোনা পরিস্থিতির বর্তমান অবস্থা দেখে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন আছে আরব আমিরাতের। সে কারণেই এ দুই দেশের খেলোয়াড়দের জন্য ভাড়া করা বিমানের ব্যবস্থা করতে হচ্ছে পিএসএলকে।

default-image

পাকিস্তান বোর্ডের প্রধান নির্বাহী ওয়াসিম খান এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ‘আমরা আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি, পিএসএলের বাকি ম্যাচগুলো আবুধাবিতে আয়োজনের পথে যেসব বিষয় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল, তার সব কটিরই সমাধান মিলেছে। সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকার, জাতীয় জরুরি সংকট ও দুর্যোগ পরিচালনা কর্তৃপক্ষ, আমিরাত ক্রিকেট বোর্ড ও আবুধাবি স্পোর্টস কাউন্সিলকে সব বাধা দূর করতে সহযোগিতা করার জন্য ধন্যবাদ। এতে আমাদের সেরা টুর্নামেন্ট আয়োজনের জন্য একটি অবস্থানে এসেছে। পিসিবি এখন দলগুলোর মালিকদের সঙ্গে কথা বলে টুর্নামেন্ট–সংক্রান্ত সবকিছু ঠিক করবে। সবকিছু সময়মতো সবাইকে জানানো হবে।’

৩৪টি ম্যাচের ১৪টি আয়োজিত হওয়ার পরই করোনার কারণে স্থগিত করা হয়েছে এ বছরের পিএসএল। টুর্নামেন্টের নিরাপত্তাবলয় নিয়ে অনেক খেলোয়াড় ও ফ্র্যাঞ্চাইজি প্রশ্ন তুলেছিল। জুনে পাকিস্তানেই সুপার লিগ আয়োজনের চিন্তা করা হলেও ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো নিজেদের অসন্তুষ্টির কথা জানিয়েছে বোর্ডকে। এ কারণেই সংযুক্ত আরব আমিরাতে আইপিএল আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
যেকোনোভাবেই হোক পিএসএল আয়োজন করতে অনেক কিছু বিসর্জন দিচ্ছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। সাধারণত পিএসএলের সম্প্রচার ও লজিস্টিক খরচ ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোই বহন করে। আর স্টেডিয়ামের ভাড়া ও ম্যাচ অফিশিয়ালদের বেতনটা দেখত বোর্ড। কিন্তু সংযুক্ত আরব আমিরাতে টুর্নামেন্ট সরানোর কারণে বাড়তি সব খরচ বোর্ডকে বহন করতে হচ্ছে।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন