পাঞ্জাবের রাজারা এবারও ‘লাড্ডু’ হবে আইপিএলে?

গেইলদের ওপর খুব একটা আস্থা পাচ্ছেন না ব্র্যাড হগ।
গেইলদের ওপর খুব একটা আস্থা পাচ্ছেন না ব্র্যাড হগ।ছবি: টুইটার
বিজ্ঞাপন

আইপিএলের সবচেয়ে সফল দল কারা? এ প্রশ্ন শুনলে সবার আগে মহেন্দ্র সিং ধোনির সুবাদে চেন্নাই সুপার কিংসের কথা মাথায় আসে। কিন্তু আইপিএলের শুরুতে যাদের আধিপত্যের কথা ভাবা হয়েছিল এক যুগ পর তারাই এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সফল দল। এ নিয়ে চারটি শিরোপা জিতেছে মুম্বাই ইন্ডিয়ানস।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ তো গেল সাফল্যের কথা। সেটা শিরোপার দিকে তাকালেই টের পাওয়া যায়। কিন্তু সবচেয়ে ব্যর্থ দল খুঁজতে গেলে একটু ঝামেলা পোহাতে হয়। এখন পর্যন্ত ৬টি দল শিরোপা জিতেছে। বর্তমানে টিকে রয়েছে এমন তিন দল এখনো শিরোপার দেখা পায়নি। এদের মধ্যে সবার আগে মাথায় আসে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর কথা। বিরাট কোহলির দল প্রতি মৌসুমেই গাদা গাদা ব্যাটসম্যান নিয়ে মাঠে নামে আর ভারসাম্যহীন এক দল নিয়ে প্রতিবারই শিরোপা দৌড় থেকে ছিটকে পড়ে। তবু এ নিয়ে তিনবার ফাইনাল খেলা বেঙ্গালুরু একটু হলেও এগিয়ে আছে দিল্লি ক্যাপিটালস (সাবেক ডেয়ারডেভিলস) ও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের চেয়ে।

আইপিএলে ব্যর্থ দলের ‘মুকুটের’ লড়াইয়ে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে দিল্লি ও পাঞ্জাবের মাঝে। দুই দলই এ নিয়ে তিনবার সবার শেষে আইপিএল শেষ করেছে। বাকি বছরগুলোতেও অধিকাংশ সময়ই নিচের দিকেই ছিল। তবে দিল্লি অন্তত বলতে পারবে চারবার নক আউট পর্বে খেলার কথা। পাঞ্জাব সে কাজটা করেছে মাত্র দুবার। আইপিএলের ব্যর্থতম দল খুঁজতে গেলে পাঞ্জাবের নামটাই বলতে হবে। আর ব্র্যাড হগের ধারণা, সে ধারা এবারও বদলাবে না। ত্রয়োদশ আইপিএলেও সবার শেষেই জায়গা হবে পাঞ্জাবের।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর শুরু হবে এই আইপিএল। তার আগে নানা হিসেব নিকাশ চলছে—কোন দল এগিয়ে আছে, কোন দল জিততে পারে শিরোপা। সাবেক অস্ট্রেলিয়ান স্পিনারের ধারণা এ আলোচনায় জায়গা পাবে না ২০১৪ সালে ফাইনাল খেলা দলটি। তাঁর ধারণা, এবারও ভক্তদের হতাশ করবে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। ইউটিউবে এক ভক্তের প্রশ্নের উত্তরে হগ জানিয়েছেন, ‘আমার মতে ওদের বিদেশি খেলোয়াড়েরা সবাই ম্যাচ জেতানোর ক্ষমতা রাখেন। শুধু আফগানিস্তানের রহমান (মুজিব-উর) ও ইংল্যান্ডের জর্ডান (ক্রিস) শুধু ব্যতিক্রম। এ দুজনের দলে একটা নির্দিষ্ট ভূমিকা আছে এবং মানসম্পন্ন বোলার।’

এত বিশ্বমানের খেলোয়াড় থাকা সত্ত্বেও কিংস ইলেভেনের কোনো সুযোগ দেখছেন না হগ, ‘ওদের অন্য যারা আছে, ম্যাক্সওয়েল (গ্লেন), গেইল (ক্রিস) এবং নিশাম (জিমি), ওরা শুধু মাঝে মধ্যে জ্বলে ওঠে। বিদেশি খেলোয়াড়দের কাছ থেকে যেমনটা চান তেমন ধারাবাহিক না এরা কেউ। এদের পারফরম্যান্সে বড্ড বেশি ওঠানামা করে। এ কারণেই কিংস ইলেভেন এবার সবার নিচে থাকবে।’

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২০১৪ সাল থেকে ম্যাক্সওয়েল পাঞ্জাবের সঙ্গে আছেন। এ কয় বছরে মাত্র ১৩৫৫ রান তুলেছেন। ২০১৪ সালে শুধু ৫৫২ রান করেছিলেন অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার। পরের চার বছরে ১৪৫, ১৭৯, ৩১০ এবং ১৬৯ রান করেছেন ম্যাক্সওয়েল। তবে ক্রিস গেইল খুব একটা খারাপ করেননি। ২০১৮ সালে ৪০.৮৮ গড়ে ৩৬৮ রান করেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওপেনার। পরের মৌসুমেও ৪৯০ রান করেছেন গেইল।

২০১০, ২০১৫ ও ২০১৬ সালের মতো ‘লাড্ডু’ যেন না হতে হয় সে চেষ্টা চালাচ্ছে পাঞ্জাব। এর মাঝেই অনিল কুম্বলে কোচ করে এনেছে তারা। অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার তাঁর সহযোগী হিসেবে থাকবেন। জন্টি রোডস, ওয়াসিম জাফররাও আছেন কোচিং স্টাফে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন