বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

উদ্‌যাপনের সময় জুতায় বিয়ার বা শ্যাম্পেন ঢেলে সেটি পান করার উদ্‌যাপনের এই ঢঙের একটা নামও আছে—শ্যুয়ি! অস্ট্রেলিয়ায় সেটি উদ্‌যাপনের খুবই চেনা একটা কেতা।

অস্ট্রেলিয়ায় সেটি জনপ্রিয় হয়েছে সে দেশের ফর্মুলা ওয়ান রেসার ড্যানিয়েল রিকার্ডোর সৌজন্যে। ২০১৬ সালে জার্মান গ্রাঁ প্রি জেতার পর পোডিয়ামে উঠে এভাবে জুতায় পানীয় ঢেলে উদ্‌যাপন করেছিলেন রিকার্ডো।

অবশ্য শ্যুয়ির প্রথা চলেছে সেই ১৮০০ শতক থেকেই। জার্মানরা প্রথম এটি ‘উদ্ভাবন’ করেছিল, সেখান থেকে অস্ট্রেলিয়ানরা উদ্‌যাপনের এই ধরনকে আপন করে নেয়।

default-image

২০১৬ সালে গ্রাঁ প্রি জেতার চার বছর পর ২০২০ সালের এমিলিয়া রোমানিয়া গ্রাঁ প্রিতেও একই ঢঙে উদ্‌যাপন করেন অস্ট্রেলিয়ান ফর্মুলা ওয়ান তারকা রিকার্ডো, সেবার পোডিয়ামে থাকা ফর্মুলা ওয়ান কিংবদন্তি লুইস হ্যামিল্টনের সঙ্গেও জুতা থেকে পানীয় ভাগাভাগি করে পান করেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার মার্কাস স্টয়নিসের সঙ্গে এই রিকার্ডোর বন্ধুত্ব আছে বলে শোনা যায়।

অস্ট্রেলিয়ান পেসার অ্যান্ড্রু টাই তো মাসখানেক আগে বলেছিলেন, ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) তাঁর দল শিরোপা জিতলে তিনিও এই উদ্‌যাপন করবেন। তবে আইপিএলে টাইয়ের দল পাঞ্জাব কিংস শিরোপা জেতা দূরে থাক, গ্রুপ পর্ব থেকে প্লে-অফেই উঠতে পারেনি। সে যাত্রায় তাই এই ‘শ্যুয়ি’ দেখতে হয়নি।

কিন্তু দুবাইয়ে কাল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে হারানোর পর অস্ট্রেলিয়ার ড্রেসিংরুমে এই উদ্‌যাপন বাদ পড়েনি। আইসিসির ভিডিওতে ফাইনালের পর অস্ট্রেলিয়ানদের উদ্‌যাপনের চিত্র দেখা গেছে। সেখানে একপর্যায়ে দেখা যায়, অস্ট্রেলিয়ার খেলোয়াড়েরা যখন নাচ-গান আর ছবি তোলায় ব্যস্ত, এর মধ্যে উইকেটকিপার ম্যাথু ওয়েড নিজের জুতা খুলে সেটিতে পানীয় ঢেলে পান করেন। পরে এই উদ্‌যাপনে যোগ দেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চও।

এভাবে উদ্‌যাপন দেখে সম্ভবত গা গুলিয়েছে শোয়েব আখতারের। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ সরব পাকিস্তানের সাবেক গতি তারকা ভিডিওটি টুইট করে ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘উদ্‌যাপনের ঢং হিসেবে একটু জঘন্য হয়ে গেল না এটা?’

শোয়েবের সঙ্গে একমত হয়তো অনেকেই হবেন।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন