default-image

ক্রিকেটে বোলারদের পায়ের নো বল ধরতে নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার শুরু করছে আইসিসি। এ মাসের শেষে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় নারীদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকেই এ প্রযুক্তির ব্যবহার শুরু হবে। প্রযুক্তিটির পরীক্ষা-নিরীক্ষা ইতিমধ্যেই ভারত ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে সম্পন্ন হয়েছে।

এ প্রযুক্তি ব্যবহার করে টেলিভিশন আম্পায়ার প্রতিটি বলে বোলারের পা ফেলার জায়গা মনিটর করবেন। লাইনের বাইরে পা পড়লেই তিনি সেটি সঙ্গে সঙ্গে মাঠের আম্পায়ারকে জানিয়ে দেবেন। মাঠের আম্পায়ার পায়ের নো বল ডাকবেন কেবল টেলিভিশন আম্পায়ার তাঁকে জানালেই। পায়ের নো বল ছাড়া বাকি অন্য যেকোনো নো বল ডাকার অধিকার মাঠের আম্পায়ারের থাকছে।

এই প্রযুক্তি সম্প্রতি পরীক্ষামূলকভাবে ১২টি খেলায় ব্যবহৃত হয়েছে। এই খেলাগুলোয় করা ৪ হাজার ৭১৭টি বলের মধ্যে প্রযুক্তির মাধ্যমে নো বল ধরা হয় মাত্র ১৩টিতে। হার ০.২৮ শতাংশ।

এ ব্যাপারে আইসিসির মহাব্যবস্থাপক জিওফ অ্যালারডাইস রীতিমতো উচ্ছ্বসিত, ‘এ প্রযুক্তির মধ্য দিয়ে পায়ের নো বলে ভুল-ভ্রান্তি কমে আসবে। ক্রিকেট সব সময়ই নতুন নতুন প্রযুক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে এগিয়ে আছে। নো বল ডাকা মাঠের আম্পায়ারের জন্য সব সময়ই কঠিন কাজ। তারপরেও পায়ের নো বলে ভুলের হার কিন্তু অনেক কম। তবে এ প্রযুক্তির ব্যবহারে এটি নেমে আসবে শূন্যের কোটায়।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন