পৃথিবীর সেরা ‘ফিজিওথেরাপিস্ট’ আইপিএল, শাস্ত্রীর কটাক্ষ

টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর ভারতের কোচের পদ ছেড়ে দেন রবি শাস্ত্রীফাইল ছবি: এএফপি

ঠোঁটকাটা রবি শাস্ত্রী মনের মধ্যে কিছু পুষে রাখেন না। যা ভাবেন, বলে ফেলেন। শাস্ত্রীর কথাবার্তা সে কারণে সব সময়ই বড় খবর। ভারতীয় ক্রিকেটের বর্ণময় এ চরিত্র তাই যা বলেন, সেটিকে আমলে নিতেই হয়।

আইপিএল নিয়েও সম্প্রতি তিনি এক বোমা ফাটিয়েছেন। যা বলেছেন, তা ক্রিকেটারদের খুব একটা পছন্দ হওয়ার কথা নয়।

ইদানীং দেখা যাচ্ছে, জাতীয় দলের হয়ে খেলতে গেলেই ক্রিকেটারদের ওজর আপত্তির শেষ নেই। যাবতীয় চোট, মানসিক অবসাদ, ক্লান্তি ইত্যাদি মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে তাঁদের মধ্যে। ক্রিকেট বোর্ডগুলোর সঙ্গে নানা ধরনের খেলাও শুরু করে দেন ক্রিকেটাররা। কিন্তু যেই আইপিএল থেকে ডাক এল, তখনই তাঁরা পুরোপুরি ফিট, ঝরঝরে।

ক্লান্তিটান্তি কোথায় যেন পালিয়ে যায় তখন। শাস্ত্রী তাই হাসতে হাসতেই বললেন, ‘আসলে আইপিএলের মতো “ফিজিওথেরাপিস্ট” হয় না। এর স্পর্শে সব ক্রিকেটারই ফিট হয়ে ওঠে, হয়ে ওঠে চাঙা,’ তাঁর কথার পরতে পরতে যেন কটাক্ষ।

ভারতের বিদায়ী কোচ রবি শাস্ত্রী
ফাইল ছবি: এএফপি

২০২২ সালের আইপিএল শুরু হচ্ছে ২৬ মার্চ। এর আগে টুর্নামেন্টের সম্প্রচারকারী সংস্থা স্টার স্পোর্টস এক আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন ডেকেছিল। সেখানেই নানা বিষয় নিয়ে মন্তব্য করেছেন শাস্ত্রী, বিশ্বের অন্যতম সেরা লিগ এই আইপিএল। পাশাপাশি এই লিগ অন্যতম সেরা ফিজিওথেরাপিস্টও বটে।

কারণ, আইপিএল নিলামের আগে সবাই কীভাবে কীভাবে যেন ফিট হয়ে ওঠে। হয়ে ওঠে চাঙা। আইপিএল সবাই খেলতে চায়।

এত দিন ভারতীয় ক্রিকেট দলের হেড কোচের দায়িত্ব সামলেছেন। একসময়ের জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার শাস্ত্রী গত সাত বছর ধারাভাষ্যের বাইরেই ছিলেন। গত নভেম্বরে টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরপরই ভারতীয় দলের প্রধান কোচ হিসেবে চুক্তি শেষ হয়ে যায় তাঁর। সেটি আর নবায়িত হয়নি। এবার তিনি পুরোপুরি মনোনিবেশ করবেন তাঁর প্রিয় পেশায়।


এবারের আইপিএলে খেলছে ১০টি দল। কলকাতা নাইট রাইডার্স, চেন্নাই সুপার কিংস, মুম্বাই ইন্ডিয়ানস, দিল্লি ক্যাপিটালস, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ, পাঞ্জাব কিংস, রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু, রাজস্থান রয়্যালসের সঙ্গে এবার যুক্ত হচ্ছে লক্ষ্ণৌ সুপারজায়ান্টস, গুজরাট টাইটানস নামের দুটি নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি।