default-image
>

ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভ স্মিথ বল বিকৃতের জন্য এক বছরের নিষেধাজ্ঞায় ছিলেন। শাস্তি কাটিয়ে ফিরেও শাপ কাটেনি। এখনো গ্যালারি থেকে দুয়ো শুনতে হয়-‘প্রতারক’।

গ্যালারিতে হট্টগোলের জন্য ইংল্যান্ডের বার্মি আর্মির ‘খ্যাতি’ বিশ্বজুড়ে। স্লেজিংয়ে তাদের সঙ্গে পেরে ওঠার মতো সামর্থ্য কারও নেই। তারাই যদি মাঠে পান ক্রিকেটে তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী অস্ট্রেলিয়াকে, তাহলে তো পোয়াবারো। এর ওপরে আজ পেয়েছিলেন বল বিকৃত কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে নির্বাসনে কাটানো ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভ স্মিথকে। ব্যস, গ্যালারিতে দুয়ো তোলার জন্য আর কী লাগে!

ওয়ার্নার ও স্টিভ স্মিথ বল বিকৃতের জন্য এক বছরের নিষেধাজ্ঞায় ছিলেন। শাস্তি কাটিয়ে ফেরার পরেও সেই বিকৃত কাজের রেশ এখনো টানতে হচ্ছে। নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরে আইপিএল খেলে জায়গা করে নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ দলে। অথচ এখনো গ্যালারি থেকে দুয়ো শুনতে হয়—‘প্রতারক!’ সাউদাম্পটনে আজ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে খেলছে অস্ট্রেলিয়া। টস হেরে প্রথম ব্যাট করতে নামে অস্ট্রেলিয়া। ওপেনার ওয়ার্নার ক্রিজে গেলেই গ্যালারি থেকে দুয়ো তুলে এক দর্শক, ‘মাঠ ছাড়ো ওয়ার্নার, তুমি প্রতারক।’

গা গরমের ম্যাচে ৫৫ বল খেলে ৪৩ রান করে লিয়াম প্লাঙ্কেটের বলে আউট হয়ে ফিরে যান এই ওপেনার। ওয়ান ডাউনে মাঠে আসেন বল বিকৃত কাণ্ডের আরেক হোতা সাবেক অধিনায়ক স্মিথ। তাঁকেও শুনতে হয় দুয়ো। কিছু দর্শক দুয়ো তুলেছিলেন—‘প্রতারক, প্রতারক, প্রতারক!’

তবে মাঠের বাইরের সমালোচনা ছাপিয়ে সেঞ্চুরি করেছেন স্মিথ। ১০২ বল খেলে ১১৬ রান করতে ৬ মেরেছেন তিনটি, ৪ আছে আটটি। স্মিথের দুর্দান্ত সেঞ্চুরির কল্যাণেই ৯ উইকেট হারিয়ে ২৯৭ রান তুলতে সমর্থ হয় অস্ট্রেলিয়া। জবাবে এখন ব্যাট করছে স্বাগতিকেরা। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান এসেছে ওয়ার্নারের ব্যাটেই। গালিটা বুমেরাং হয়েই গেছে ইংলিশ সমর্থকদের জন্য। সেঞ্চুরি করে ফেরার মুখে স্মিথ অবশ্য দর্শকদের করতালি পেয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন