আগের দিন শ্রীলঙ্কাকে ভুগিয়েছিল পাকিস্তানি স্পিনাররা। কাল ব্যাটিংয়ে ভোগান্তি হলো পাকিস্তানেরও। তবে স্পিনে নয়, পেসে। ধাম্মিকা প্রসাদ আর নুয়ান প্রদীপ মিলেই ধসিয়ে দিলেন পাকিস্তানের টপ আর মিডল অর্ডার। বারকয়েক বৃষ্টি এসে বাগড়া দিয়েও খুব একটা বাঁচাতে পারল না পাকিস্তানকে। পাল্লেকেল্লেতে শেষ পর্যন্ত আলোক স্বল্পতায় দ্বিতীয় দিনের খেলা বন্ধ হয়ে গেল, ওভার বাকি ২০টি। কিন্তু শ্রীলঙ্কার চেয়ে প্রথম ইনিংসে পাকিস্তান পিছিয়ে ৬৯ রানে। শেষ ব্যাটসম্যান ইমরান খানকে নিয়ে ৭২ রানে ব্যাট করছেন সরফরাজ আহমেদ।
শ্রীলঙ্কার শেষ দুটি উইকেট মাত্র ৩.৫ ওভারের মধ্যে তুলে নিয়ে কাল সকালে হাসিমুখেই মাঠ ছেড়েছিল পাকিস্তান দল। কিন্তু তাদের সে হাসিটা বেশিক্ষণ থাকেনি। নবম ওভারেই শান মাসুদকে এলবিডব্লু করে তোপ দাগতে শুরু করা প্রসাদ দারুণ সঙ্গ পেলেন নুয়ান প্রদীপের। পাকিস্তানের প্রথম ৬ উইকেটের ৫টিই নিলেন দুই লঙ্কান পেসার। মাঝে শুধু ইউনিস খান হয়েছেন রানআউট। তবে এর আগেই টেস্টে দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে শ্রীলঙ্কার মাটিতে ১ হাজার রানের মাইলফলক পেরিয়ে গেছেন ইউনিস। সফরকারী ব্যাটসম্যানদের মধ্যে শ্রীলঙ্কায় হাজার রানের বেশি আছে শুধু শচীন টেন্ডুলকারের (১১৫৫)।
আজহার আলী ও সরফরাজ প্রতিরোধে ঘুরে দাঁড়াতে চেষ্টা করেছিলেন। তাঁরাও পারেননি লঙ্কান বোলারদের সামনে। অর্ধশত রানের কোনো জুটিই হয়নি।
সকালে নুয়ান প্রদীপকে এলবিডব্লু করে নিজের পঞ্চম উইকেটটা পান ইয়াসির শাহ। তৃতীয়বারের মতো ৫ উইকেট নিয়ে সিরিজে ২২ উইকেট হলো পাকিস্তানি লেগ স্পিনারের। শ্রীলঙ্কার মাটিতে কোনো টেস্ট সিরিজে ৩ বার ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়া দ্বিতীয় বিদেশি বোলার তিনি। যে কীর্তিটা এর আগে ছিল শুধু অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি শেন ওয়ার্নের। ক্রিকইনফো।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0