আজ মিরাজ তিন উইকেট পেয়েছেন।
আজ মিরাজ তিন উইকেট পেয়েছেন।ছবি: এএফপি

প্রস্তুতি ম্যাচে প্রথম দিনটা ব্যাটসম্যানদের পক্ষে গেলেও দ্বিতীয় দিনে স্পিনাররা সাফল্য পেয়েছেন। তামিম ইকবালের লাল দলের ৩১৪ রানের জবাবে মুমিনুল হকের সবুজ দল আজ ৭১ ওভারে ব্যাট করে ২২৫ রানে অলআউট হয়। সবুজ দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৪ রান লিটন দাসের।

লাল দলের মেহেদী হাসান মিরাজ ৪১ রান দিয়ে নিয়েছেন সর্বোচ্চ ৩ উইকেট। আরেক স্পিনার তাইজুল ইসলাম ১ উইকেট নেন।

শ্রীলঙ্কা সফরে দুই টেস্টের সিরিজ শুরুর আগে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়াই প্রস্তুতি ম্যাচের মূল লক্ষ্য। সঙ্গে নতুন কোনো সমন্বয়ের পরীক্ষাও নেওয়ার সুযোগ ছিল শ্রীলঙ্কার কাতুনায়েকের সিএমসিসি মাঠের দুই দিনের এই প্রস্তুতি ম্যাচে।

বিজ্ঞাপন
default-image

আজ যেমন লিটনকে ওপেনিংয়ে খেলানো হয়। নতুন লাল বল আর আবু জায়েদ, খালেদ আহমেদ, তাসকিন আহমেদের বিপক্ষে তিনি কেমন করেন, সেই পরীক্ষাই হয়তো দিলেন লিটন। ওপেনিংয়ে ২৭ রান করে স্বেচ্ছায় অবসর নেন তিনি। পরে আবার টেস্টে নিজের নিয়মিত সাত নম্বরে নেমে ৬৪ রান করে মাঠ ছাড়েন।

জানা গেছে, লিটনকে ওপেনার হিসেবে খেলিয়ে টেস্ট দলের উইকেটকিপার হিসেবে নুরুল হাসানকে বিবেচনা করা হতে পারে। সেই পরীক্ষাই হয়তো দুই দিনের প্রস্তুতি হয়ে গেল।

default-image

দুইবার ব্যাটিং করেছেন টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুলও। প্রথমবার রানের খাতা না খুলে আউট হন। পরে নেমে ৪৭ রান করেন এই বাঁহাতি। ওপেনার সাদমান ইসলাম করেন ২৭ রান। মিডল অর্ডারে খেলতে নামা ইয়াসির আলী ১৫ ও মোহাম্মদ মিঠুন ২৮ রান করেন। বোলার শরিফুল ইসলাম ২০ রানে অপরাজিত ছিলেন। দুই স্পিনার মিরাজ ও তাইজুলের ভিড়ে একটি উইকেট নিয়েছেন পেসার আবু জায়েদ।

গতকাল ব্যাট করা লাল দলের হয়ে ফিফটি করেন তামিম, মুশফিকুর রহিম, সাইফ হাসান ও নাজমুল হোসেন। সর্বোচ্চ ৬৬ রান করে স্বেচ্ছায় ড্রেসিংরুমে যান মুশফিক। এ ছাড়া তামিম ৬৩, নাজমুল ৫৩, সাইফ ৫২, নুরুল হাসান ৪৮ রান করে স্বেচ্ছায় মাঠ ছাড়েন।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন