বিজ্ঞাপন
default-image

লম্বা বিরতির পর মাঠে ফেরা সাকিব আল হাসান কেমন করেন, সেদিকে কৌতূহল ছিল অনেকের। তিনে নেমে ২০ বলে ২৮ রান করে মেহেদী হাসানের বলে বোল্ড হন সাকিব। মাঝে শুধু মোহাম্মদ মিঠুনই রান পাননি। দ্রুত গতিতে রান করেছেন মাহমুদউল্লাহ, আফিফ হোসেন। ৫৪ বলে ৬টি চার ও ২টি ছক্কায় ৬২ রান করেন মাহমুদউল্লাহ। ৫৪ বলে ৭টি চার ও ৩টি ছক্কায় আফিফ করেন ৬৪। দুজনই ফিফটি করে স্বেচ্ছায় মাঠ ছাড়েন। শেষে মেহেদী হাসান মিরাজ ও আমিনুল ইসলাম কিছু রান যোগ করলে ৪৫ ওভারে ৩ উইকেটে সবুজ দলের রান দাঁড়ায় ২৮৪ রান।

ব্যাটসম্যানদের দাপটের মধ্যে ভালো বোলিং করেছেন মেহেদী হাসান। ৯ ওভার বোলিং করে ৪০ রানে ২ উইকেট নেন তিনি। বাঁহাতি পেসার শরীফুল ইসলাম ১ উইকেট নিয়েছেন ৭ ওভারে ৪৫ রান দিয়ে। উইকেটশূন্য ছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোসাদ্দেক হোসেন, নাসুম আহমেদ।

default-image

দ্বিতীয় ইনিংসে তামিমের আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে সবুজ দলের ২৮৪ রানও কম মনে হতে শুরু করে। সাকিবের বলে তামিমের সঙ্গী লিটন দাস ১৫ রানে আউট হলেও তামিমের ব্যাট থেকে আসে ৫৮ বলে ৮০ রানের বিধ্বংসী ইনিংস। ৭টি চার ও ৪টি ছক্কা ছিল তাঁর ইনিংসে। তিনে নামা ইমরুল কায়েস আউট হন ৩৩ রানে। মুশফিকুর রহিম চারে নেমে ৫৫ বলে ৬৪ রান করে স্বেচ্ছায় মাঠ ছেড়েছেন। মোসাদ্দেক, মেহেদী ও সাইফউদ্দিনের ছোট ছোট ইনিংস ৪১ ওভারেই ম্যাচ শেষ করে দিয়েছে।

আজ সবুজ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ৫ ওভার হাত ঘুরিয়েছেন। ২৯ রানে ১ উইকেট নিয়েছেন। সাকিব ৬ ওভারে ৪৫ রানে ১ উইকেট নেন। ভালো বোলিং করেছেন তাইজুল ইসলাম। ৬ ওভারে ২১ রানে ১ উইকেট নেন এই বাঁহাতি। আরেক স্পিনার মিরাজ অবশ্য রান খরচা করেছেন বেশ। ৭ ওভারে দিয়েছেন ৫২ রান।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন