default-image

‘যে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা হচ্ছে, সেগুলো তিনি দারুণভাবে ব্যাখ্যা করেছেন। তিনি তাঁর ভাষায় বিষয়গুলো বুঝিয়েছেন’, ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে বলেছেন অস্ট্রেলিয়ার সীমিত ওভারের অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ।

সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘তাঁর প্রতি আমাদের শতভাগ সমর্থন আছে। গত কয়েক বছরে তিনি অস্ট্রেলিয়াকে যেভাবে কোচিং করিয়েছেন, সেটা দারুণ। আমরা দারুণ কিছু সাফল্যও পেয়েছি। যখন ল্যাঙ্গারকে নিয়ে অসন্তোষগুলো সামনে এসেছিল, তাঁর জন্য ব্যাপারটি সহজ ছিল না। তবে আমাদের দিক থেকে ব্যাপারটা ইতিবাচকই ছিল।’

সে সময় ল্যাঙ্গারের অমন আচরণের পেছনে দীর্ঘদিন জৈব সুরক্ষাবলয়ে থাকারও একটা প্রভাব ছিল বলে মনে করেন ফিঞ্চ। সে সময় তাঁদের কোচের বাড়তি সহায়তাও দরকার ছিল বলে ধারণা তাঁর। তবে এসব নিয়ে এত মাতামাতির কিছু নেই বলেই মনে করেন তিনি, ‘সব কোচ এবং ক্রিকেটারই কখনো না কখনো নিজেদের দিকে ফিরে তাকায়। এটি নতুন কিছু নয়।’

default-image

ডিসেম্বর-জানুয়ারিতে ভারতের বিপক্ষে ওই সিরিজের পর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে অস্ট্রেলিয়া। এরপরই ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই সফর। সফরে তারা খেলবে পাঁচটি টি-টোয়েন্টি ও তিনটি ওয়ানডে। বাংলাদেশ সফরে আসবে এরপর। বাংলাদেশেও অস্ট্রেলিয়ার খেলার কথা পাঁচটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। তবে এ দুই সিরিজে ল্যাঙ্গার দলে পাবেন না শীর্ষস্থানীয় বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারকে। আইপিএলের পর ব্যক্তিগত কারণে ও চোটের জন্য এ দুই সফরে নেই স্টিভ স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার, প্যাট কামিন্স, গ্লেন ম্যাক্সওয়েলরা।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন