বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

রুটের অধিনায়কত্বে ৪৬ ম্যাচ খেলেছেন অ্যান্ডারসন। ৩৯ বছর বয়সী এই পাঁচ বছরে পেয়েছেন ১৭০ উইকেট। রুটের অধীন ভালো যেমন খেলেছেন, তেমনি সর্বশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বিতর্কিতভাবে অ্যান্ডারসনকে বাদও দেওয়া হয়েছে। শুধু অ্যান্ডারসন নন, তাঁর দীর্ঘদিনের নতুন বলের সঙ্গী স্টুয়ার্ট ব্রডকেও বাদ দেওয়া হয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে। সিরিজে ১-০ ব্যবধানে হারের পরই পদত্যাগের ঘোষণা দেন রুট।

বিবিসিতে নিজের টেইলএন্ডার পডকাস্টে এসে অ্যান্ডারসন বলেন, অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেওয়ার পর রুটের সঙ্গে তাঁর কী কথা হয়েছিল, ‘আমি ওকে ধন্যবাদ দিয়েছি। কারণ, পরিসংখ্যানের দিক থেকে বোলার হিসেবে আমার সেরাটা ওর অধীন হয়েছে, এটা কোনো কাকতাল নয়। ওর অধীন আমাকে ও স্টুয়ার্টকে নিয়ে অনেক কিছুই বলা হয়েছে। এ ব্যাপারে অনেক কথা হয়েছে। কিন্তু আমার কাছে মনে হয়েছে, ওর অধীনই সেরাটা খেলতে পেরেছি। কয়েক বছর ধরে আমাকে সমর্থন দেওয়ার জন্য ওকে ধন্যবাদ দিয়েছি।’

default-image

টেস্টে পেস বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি উইকেট এখন অ্যান্ডারসনের। তাঁর চেয়ে বেশি টেস্ট উইকেট আছে শুধু দুজনের—মুত্তিয়া মুরালিধরন ও শেন ওয়ার্ন। ৩৯ বছর বয়সেও আগের মতো ধার তাঁর বলে। এর পেছনে রুটের অবদান স্বীকার করে নিয়েছেন অ্যান্ডারসন, ‘খেলা চালিয়ে যেতে ও অনেক অনুপ্রাণিত করেছে। বোলার হিসেবে আমার সর্বোচ্চটা বের করতে চেয়েছে সে। যখন সময় হয়েছে বিশ্রাম দিয়েছে এবং নিশ্চিত করেছে যত দিন সম্ভব আমি যেন খেলে যেতে পারি। দুজনের মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধা আছে আমাদের এবং সব সময় আমার ভালো বন্ধু ছিল সে।’

তবে অধিনায়কত্বের শেষ দিকে রুটকে যে ওভাবে আর পেতেন না সেটাও জানিয়েছেন অ্যান্ডারসন। তাই রুটের এই সিদ্ধান্তে ইতিবাচক কিছু খুঁজে নিয়েছেন অ্যান্ডারসন, ‘অধিনায়কত্বে যত নিবিষ্ট হয়েছে, তত আমাদের পক্ষে বন্ধুত্ব ধরে রাখা কঠিন হয়ে উঠেছিল। কিন্তু আশা করি এখন আবার সেই বন্ধুত্বে ফেরা সহজ হবে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন