default-image

নিজেদের শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের কাছে হারল বাংলাদেশ। এর আগেও আইরিশরা বহুবার অগ্নিপরীক্ষা নিয়েছে বাংলাদেশের। মাশরাফির দল এই ভেবে স্বস্তি পেতে পারে, এবারের গ্রুপ পর্বে অন্তত আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে দেখা হচ্ছে না। কিন্তু তাতে কি স্বস্তির জো আছে? যে দুই দলের বিপক্ষে নিশ্চিত জয় প্রত্যাশা করছে বাংলাদেশ, তারই একটা স্কটল্যান্ড তাদের দুটো প্রস্তুতি ম্যাচেই দুর্দান্ত খেলেছে। আজ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বেঁধে দেওয়া ৩১৪ রানের বড় লক্ষ্যও প্রায় টপকে যেতে বসেছিল। শেষ পর্যন্ত ৩১০ রানে থেমে মাত্র ৩ রানে হেরেছে স্কটিশরা। 

যে আয়ারল্যান্ডের কাছে আজ বাংলাদেশ হেরেছে, সেই আইরিশদের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে স্কটল্যান্ড ১৭৯ রানের বিশাল ব্যবধানে ধরাশায়ী করেছিল। আজ তো ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েই দিয়েছিল প্রায়। ৪৮ ওভার শেষে তাদের স্কোর ছিল ঠিক ৩০০। শেষ দুই ওভারে দরকার মাত্র ১৪ রান। হাতে ৪ উইকেট। কিন্তু সেখান থেকে ম্যাচটা হেরে যায় স্কটল্যান্ড। শেষ তিন ব্যাটসম্যানই যে রানের খাতা খুলতে পারেননি।
প্রথমে ব্যাট করে দিনেশ রামদিনের ৮৮, লেন্ডল সিমন্সের ৫৫, ডোয়াইন স্মিথের ৪৫ আর ড্যারেন ব্রাভোর ৪৩ রানের ইনিংসগুলোর সৌজন্যে ৯ উইকেটে ৩১৩ রান তোলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। শুরু থেকেই ভালো জবাব দিচ্ছিল আইরিশরা। ৩ উইকেটে ১৮৪ রান তুলে ফেলেছিল তারা। এই ভালো শুরুটা মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা ধরে রাখলেও নিজেদের কাজটা করতে পারেননি টেল এন্ডাররা। পারলে এই ম্যাচেও জয়ী হতো স্কটল্যান্ড।
স্কটিশদের ভালো শুরু এনে দিয়েছিলেন ওপেনার কাইল কোয়েতজার। ৯৬ রান করে আউট হয়েছেন তিনি। ষষ্ঠ উইকেটে রিচি বেরিংটন (৬৬) ও ম্যাথু ক্রসের (৩৯) ৮৬ রানের জুটিটা জয়ের প্রান্তে নিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু আর তীরে ভেড়া হয়নি তাঁদের।
প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচেও ২৯৬ রানের বড় স্কোর গড়েছিল স্কটল্যান্ড। বোঝাই যাচ্ছে তাদের ব্যাটসম্যানরা কেমন ফর্মে আছে। আর আইরিশদের মাত্র ১১৭ রানে গুঁড়িয়ে দিয়ে বোলাররা বুঝিয়ে দিয়েছেন, তাঁরাও প্রস্তুত।
বাংলাদেশের জন্য এবার কোন পরীক্ষা অপেক্ষা করছে কে জানে! স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ৫ মার্চ খেলবে বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন