বাংলাদেশকে দুঃস্বপ্ন দেখানো ভারতীয় বোলার বিদায় বললেন ক্রিকেটকে

বাংলাদেশকে দুঃস্বপ্ন দেখিয়েছিলেন স্টুয়ার্ট বিনি। ছবি: এএফপিফাইল ছবি

স্টুয়ার্ট বিনি নামটা ভারতীয় ক্রিকেটে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকার কোনো কারণ নেই। হ্যাঁ, ১৯৮৩ বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার রজার বিনির পুত্র হিসেবে যদি তাঁকে মনে রাখা হয়, সেটি করা যেতে পারে। কিন্তু ক্রিকেটীয় রেকর্ড, মাঠের পারফরম্যান্স কোনো কিছু দিয়েই ভারতের ক্রিকেটে তিনি বিরাট কিছু নন। ১৪টি ওয়ানডে, ৬ টেস্ট আর ৩ টি-টোয়েন্টি দিয়ে ক্যারিয়ার শেষ করা স্টুয়ার্ট বিনি বিস্মৃতই হয়ে পড়েছিলেন। হঠাৎ অবসরের ঘোষণা দেওয়ার পরই আবার আলোচনায় এসেছেন তিনি।

২০১৪ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে সেই ম্যাচ। ৪ রানে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন স্টুয়ার্ট বিনি
ফাইল ছবি

ভারতীয় ক্রিকেটে আলাদা করে স্টুয়ার্ট বিনিকে মনে রাখবে কি না, সে প্রশ্ন একদিকে সরিয়ে রাখলেও বাংলাদেশের ক্রিকেট যে তাঁকে মনে রেখেছে, সেটি বলাই যায়। তাঁকে বাংলাদেশের ক্রিকেট মনে করে আক্ষেপের সঙ্গেই। সাদামাটা ক্যারিয়ারের এক মিডিয়াম পেস বোলারের বোলিংয়েই যে লজ্জা পেতে হয়েছিল বাংলাদেশকে। স্টুয়ার্ট বিনি নামটা এলেই বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে পড়ে ৪ রানের বিনিময়ে ৬ উইকেট শিকারের এক পরিসংখ্যান।

স্ত্রী মায়ান্তি আগারওয়ালের সঙ্গে স্টুয়ার্ট বিনি
ছবি: ইনস্টাগ্রাম

সালটা ২০১৪। জুন মাসে ভরা বর্ষায় বাংলাদেশ সফরে এল ভারত। সেটিকে ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট দল না বলে অনেকেই ‘বি’ দল বলে রসিকতা করেছিলেন। কিন্তু সে দলকেই হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। তার ওপর এক ম্যাচে ভারতকে ১০৫ রানে গুটিয়ে দিয়েও নিজেরা ৫৮ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। সে ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছিল স্টুয়ার্ট বিনির হাতেই। ওই যে, ৪ রানে ৬ উইকেট! মিডিয়াম পেস বোলিংয়ে বাংলাদেশের ব্যাটিংকে সে ম্যাচে ধসিয়ে দিয়েছিলেন স্টুয়ার্ট বিনি। ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সর্বনিম্ন সংগ্রহ সেটিই।

সেই স্টুয়ার্ট বিনি ৩৭ বছর বয়সে সব সংস্করণের ক্রিকেটকেই বিদায় বলেছেন। এক বিদায়বার্তায় আজ তিনি জানিয়েছেন, ভারতীয় ক্রিকেট দলকে প্রতিনিধিত্ব করতে পারার গর্ব আর আনন্দের কথা, ‘আমি আপনাদের জানাতে চাই, আন্তর্জাতিক ও প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট থেকে আমি অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সর্বোচ্চ পর্যায়ে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে পারাটা দারুণ সম্মানের। আমি দেশকে প্রতিনিধিত্ব করাটাকে উপভোগ করেছি। একজন গর্বিত ভারতীয় হিসেবেই ক্রিকেটকে বিদায় বলছি আজ।’

৬ টেস্টে স্টুয়ার্ট বিনির সংগ্রহ ১৯৪ রান। উইকেট নিয়েছেন ৩টি। ১৪ ওয়ানডেতে তিনি রান করেছেন ২৩০, উইকেট ২০টি। তিনি বিদায়বেলায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড ও কর্ণাটক ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিও, ‘আমার ক্যারিয়ারে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের ভূমিকার জন্য তাদের কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি কর্ণাটক ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনকেও। তাদের সমর্থন ও অনুপ্রেরণা না থাকলে হয়তো আমি ক্রিকেটারই হতে পারতাম না।’

ভারতের বিশ্বকাপজয়ী তারকা রজার বিনি তাঁর বাবা, এটি ক্রিকেটপ্রেমীদের জানা। রজার বিনি ভারতের হয়ে এক যুগের বেশি সময় ধরে খেলেছেন। আবার স্টুয়ার্ট বিনির স্ত্রীও খেলার দুনিয়ার মানুষ। গ্ল্যামার গার্ল মায়ান্তি আগারওয়াল ক্রিকেট সঞ্চালক হিসেবে আলাদা একটা জায়গাও করে নিয়েছেন।