default-image

ওপেনার হিসেবে তাঁর রেকর্ডটা খারাপ নয়। ১২ ইনিংসে ৪৪.৭০ গড় ও ৯৭.১৭ স্ট্রাইক রেটে ৪৪৭ রান সুনীল অ্যামব্রিসের। বাংলাদেশের বিপক্ষে আয়ারল্যান্ডের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে অপরাজিত ৬৯ রানের একটি ইনিংস আছে ক্যারিবীয় সহ অধিনায়কের। এবার বাংলাদেশের বিপক্ষে রেকর্ডটা আরও উজ্জ্বল করতে চান এই ওপেনার।

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের অন্তত একটি ম্যাচে সেঞ্চুরি করার লক্ষ্য স্থির করেছেন অ্যামব্রিস। আজ অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে ওয়ানডে সিরিজে অ্যামব্রিসের ব্যক্তিগত লক্ষ্যের ব্যাপারে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমি রান করতে চাই। তিন ম্যাচের মধ্যে অন্তত একটি সেঞ্চুরি করতে চাই। মনে হয় আমার জন্য এটা ভালো হবে।’

বিজ্ঞাপন
default-image

২০১৯ সালের সেই ত্রিদেশীয় সিরিজে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের একমাত্র সেঞ্চুরিটি করেন অ্যামব্রিস।

বাংলাদেশি কন্ডিশন ডাবলিনের মতো ব্যাটিং–সহায়ক হবে না জানেন, তবু চ্যালেঞ্জটা নিতে চান তিনি, ‘আমার ক্রিকেট তেমন বদলায় না। আমি ইতিবাচক থাকতে পছন্দ করি। চেষ্টা করি মাথা খাটিয়ে খেলতে। মাঝেমধ্যে কাজে লাগে, মাঝেমধ্যে লাগে না। বাংলাদেশের সঙ্গে হয়তো বেশির ভাগ সময় ভালোই হয়। তবে মনে হয় কাজটা এখানে সহজ হবে। আয়ারল্যান্ডের তুলনায় এখানে হয়তো উইকেটে সময় বেশি কাটাতে হবে। সেখানে উইকেট ব্যাটিংয়ের জন্য ভালো ছিল।’

মিরপুরের মন্থর উইকেটে বড় রান করা কঠিন হবে। অতীত রেকর্ড দেখে সেটি আঁচ করতে পারছেন অ্যামব্রিস নিজেও। তিন ওয়ানডের সিরিজে, বিশেষ করে মিরপুরের প্রথম দুই ওয়ানডে ম্যাচে দলের রান তিন শ স্পর্শ করার সম্ভাবনা ক্ষীণ। তবে লড়াই করার মতো পুঁজি পেলে জয়ের সম্ভাবনা দেখেন অ্যামব্রিস, ‘আমার মনে হয়ে এই কন্ডিশনে আমরা ২৪০ থেকে ২৭০ রান করতে পারলে ম্যাচ জেতা সম্ভব।’

এই ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের অনেকের মতোই অ্যামব্রিসও চাইছেন নিয়মিতদের অনুপস্থিতির সুযোগ নিয়ে দলে জায়গা পাকা করতে। উপমহাদেশেই আগামী ওয়ানডে বিশ্বকাপ। বাংলাদেশের মাটিতে ভালো করলে নির্বাচকদের পছন্দের তালিকায় জায়গা করে নেওয়া সম্ভব। অ্যামব্রিসও সেই সম্ভাবনায় আশা বাঁধছেন, ‘এ সফরে আমি নিশ্চিত হয়ে খেলতে পারব। কারণ, এটাই মনে হয় আমার প্রথম সিরিজ, যেখানে আমি জানি যে আমি একাদশে থাকব। এ সুযোগটা আমি কাজে লাগিয়ে সামনের সফরগুলোর জন্য নিজেকে তৈরি করতে চাই।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন