বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে নেই টেলর।
বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে নেই টেলর।ছবি: ব্ল্যাক ক্যাপস টুইটার

নিউজিল্যান্ডের নিয়মিত অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন কনুইয়ের চোটের কারণে বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে থাকবেন না, আগেই জানা গিয়েছিল। এবার দলটার আরেক ব্যাটিং–স্তম্ভ রস টেলরও চোটের কারণে চলে গেলেন দলের বাইরে। তবে নিউজিল্যান্ডের জন্য স্বস্তির সংবাদ, উইলিয়ামসনের মতো গোটা ওয়ানডে সিরিজের জন্য মাঠের বাইরে চলে যাচ্ছেন না টেলর। শুধু প্রথম ওয়ানডেটাই টেলরকে ছাড়া মাঠে নামবে কিউইরা। প্রথম ওয়ানডেতে টেলরের বিকল্প হিসেবে দলে ডাকা হয়েছে মার্ক চ্যাপম্যানকে।

ডানেডিনে শনিবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে খেলতে নামবে বাংলাদেশ। টেলরের অনুপস্থিতির কারণে একটা অনাকাঙ্ক্ষিত রেকর্ডের সামনে নিউজিল্যান্ড। ২০১৪ সালের পর এই প্রথম উইলিয়ামসন ও টেলরের কেউ নিউজিল্যান্ডের হয়ে কোনো ওয়ানডেতে মাঠে থাকবেন না। প্রথম ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ডের দুজন খেলোয়াড়ের অভিষেক ঘটবে বলে জানা গেছে— ডেভন কনওয়ে ও উইল ইয়ং। টেলরের বিকল্প হিসেবে চ্যাপম্যানকে ডাকা হলেও সরাসরি তাঁকে মূল একাদশে সুযোগ দেওয়া হবে না। কনওয়ের অভিষেক মোটামুটি নিশ্চিত, এদিকে টেলর যেহেতু থাকছেন না, সেহেতু কপাল খুলে যেতে পারে ইয়ংয়ের। আশা করা হচ্ছে, প্রথম ম্যাচে টেলর না থাকলেও, পরের দুই ম্যাচে খেলার জন্য ঠিকই সুস্থ হয়ে যাবেন নিউজিল্যান্ডের টেস্ট ও ওয়ানডে ইতিহাসের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক।

বিজ্ঞাপন

টেলরের অবস্থা নিয়ে মিডিয়ার সামনে কথা বলেছেন দলটার কোচ গ্যারি স্টেড, ‘সিরিজের শুরুর ঠিক আগে রস এভাবে চোটে পড়ল, ব্যাপারটা আসলেই খুব হতাশাজনক। ছোট্ট চোটে পড়েছে ও, আশা করছি যথাযথ বিশ্রাম ও চিকিৎসা পেলে ক্রাইস্টচার্চে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া দ্বিতীয় ওয়ানডেতেই ও খেলতে পারবে।’

টেলরে জায়গায় দলে আসা মার্ক চ্যাপম্যানকে নিয়েও বেশ উচ্ছ্বসিত স্টেড, ‘মার্কের (চ্যাপম্যান) জন্য অনেক রোমাঞ্চকর সময় এখন। ও সম্প্রতি টি-টোয়েন্টিতে অনেক ভালো করেছে, আশা করছি ওয়ানডেতে সুযোগ পেলে ও ওর দায়িত্ব ঠিকঠাক পালন করতে পারবে।’

এক বছরের বেশি সময় ধরে ওয়ানডে না খেলা নিউজিল্যান্ড বাংলাদেশের বিপক্ষে মাঠে নেমেই ‘খরা’ কাটাচ্ছে। ২০১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলার পর ওয়ানডে খেলেছেই সাকল্যে চারটি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন