বাংলাদেশের বিপক্ষে আরেক বিশ্বরেকর্ড প্রভিন জয়াবিক্রমার।
বাংলাদেশের বিপক্ষে আরেক বিশ্বরেকর্ড প্রভিন জয়াবিক্রমার। ছবি: এএফপি

কাইল মেয়ার্সকে বাংলাদেশের এত সহজেই ভুলে যাওয়ার কথা নয়। এই তো গত ফেব্রুয়ারিতে চট্টগ্রাম টেস্টে অভিষিক্ত হন ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটসম্যান। সেই টেস্টে বাংলাদেশের বিপক্ষে এশিয়ার মাটিতে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জয়ে রেকর্ড গড়েছিলেন মেয়ার্স—টেস্ট অভিষেকে চতুর্থ ইনিংসে ডাবল সেঞ্চুরি করে। কিংবা ২০১৮ সালে ঢাকা টেস্টে স্পিন–সহায়ক উইকেটে ৪৪ রানে ৮ উইকেট নিয়ে শ্রীলঙ্কার হয়ে টেস্ট অভিষেকে সেরা বোলিংয়ে রেকর্ড গড়েছিলেন আকিল দনঞ্জয়া। পরিসংখ্যান ঘাঁটলে প্রতিপক্ষ দলে এমন আরও ক্রিকেটার মিলবে, বাংলাদেশের বিপক্ষে অভিষেকে যাঁরা জ্বলে উঠেছেন। মজা করে তাই বলতে পারেন, রেকর্ড-গড়া অভিষেক চাই? নামিয়ে দাও বাংলাদেশের বিপক্ষে!

প্রভিন জয়াবিক্রমাও যেমন পুরোনো রেকর্ড ভেঙে গড়লেন নতুন রেকর্ড। পাল্লেকেলে টেস্টে আজ বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৯২ রানে ৬ উইকেট নেন বাঁহাতি এ স্পিনার। টেস্ট অভিষেকে এটি ছিল শ্রীলঙ্কার হয়ে এক ইনিংসে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড। আজ বাংলাদেশ টেস্টের পঞ্চম ও শেষ দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে ২২৭ রানে অলআউট হয়ে হেরেছে ২০৯ রানে। বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসে ৮৬ রানে ৫ উইকেট নেন জয়াবিক্রমা।

default-image
বিজ্ঞাপন

অর্থাৎ জয়াবিক্রমা দুই ইনিংস মিলিয়ে ১৭৮ রানে ১১ উইকেট নিলেন তিনি। টেস্ট অভিষেকে এক ম্যাচে কোনো বাঁহাতি স্পিনারের এটাই সেরা বোলিং। ১৯৫০ সালে ম্যানচেস্টারে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেকে ১০৪ রানে ১১ উইকেট নিয়েছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক বাঁহাতি স্পিনার আলফ ভ্যালেন্টাইন। এত দিন এটাই ছিল অভিষেক ম্যাচে কোনো বাঁহাতি স্পিনারের সেরা বোলিং। ভ্যালেন্টাইনকে পেছনে ফেলে রেকর্ডটি নতুন করে লেখালেন জয়াবিক্রমা।

শ্রীলঙ্কার প্রথম বোলার হিসেবে টেস্ট অভিষেকে ন্যূনতম ১০ উইকেট নিলেন জয়াবিক্রমা। অর্থাৎ শ্রীলঙ্কার হয়ে টেস্ট অভিষেকে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ডও এখন তাঁর দখলে। আর টেস্ট ইতিহাসে ১৬তম বোলার হিসেবে অভিষেক ম্যাচে ন্যূনতম ১০ উইকেট নিলেন ২২ বছর বয়সী এ স্পিনার। জয়াবিক্রমা আরও একটি জায়গায় ফিরিয়ে নিয়ে গেছেন ৯৮ বছর আগের স্মৃতিতে। ১৯২৩ সালে কেপটাউনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেকে ১১২ রানে ১১ উইকেট নিয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক বাঁহাতি পেসার আলফ্রেড হল। তারপর এই ৯৮ বছরে বাঁহাতি বোলারদের মধ্যে টেস্ট অভিষেকে জয়াবিক্রমাই সবচেয়ে কম রান দিয়ে ন্যূনতম ১০ উইকেট নিলেন।

default-image

টেস্ট ক্রিকেটে ১৪৪ বছরের ইতিহাসে জয়াবিক্রমার এই বোলিং ফিগার শীর্ষ দশে থাকবেন। তালিকায় তিনি দশম। বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই ইনিংসেই ন্যূনতম ৫টি করে উইকেট নিয়েছেন জয়াবিক্রমা। টেস্ট অভিষেকে সর্বশেষ এমন নজির দেখা গেছে ১৯৮৮ সালে। ভারতের সাবেক স্পিনার নরেন্দ্র হিরওয়ানি চেন্নাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অভিষেকে সর্বশেষ দুই ইনিংসেই ন্যূনতম ৫টি করে উইকেট নিয়েছিলেন।

পাল্লেকেলেতে আজ ম্যাচসেরার পুরস্কার হাতে জয়াবিক্রমা বলেন, ‘অভিষেকের আগে একটু চাপে ছিলাম। কিন্তু অধিনায়ক ও সিনিয়ররা সাহায্য করেছেন চাপ কাটিয়ে উঠতে।’ সেটি জয়াবিক্রমার হয়তো নিজের চাপ। কিন্তু বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের তিনি কী পরিমাণ চাপে রেখেছিলেন সেটি মুমিনুল-মুশফিকরাই ভালো বলতে পারবেন!

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন