বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে নেওয়া হলেও সিডন্সের কাজের পরিধি কিংবা ভূমিকা এখনো ঠিক হয়নি। সিডন্স জাতীয় দলের সঙ্গে কাজ করবেন, নাকি বয়সভিত্তিক দল বা এইচপির ব্যাটসম্যানদের পরামর্শ দেবেন, তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি।

আজ সভা শেষে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান তা-ই বললেন, ‘তাঁকে আমরা ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দিচ্ছি। তিনি কোথায় কাজ করবেন, কী কাজ করবেন সেটা এখনো চূড়ান্ত হয়নি।’

তিনি কোথায় কাজ করবেন, কী কাজ করবেন সেটা এখনো চূড়ান্ত হয়নি
ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে সিডন্সের কাজের পরিধি ও ধরন কী হবে জানাতে গিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান

তবে কবে আসবেন সিডন্স, সেটি আজ নিশ্চিত করে জানিয়ে দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি, ‘আশা করছি ফেব্রুয়ারিতেই হয়তো-বা সবকিছু ঠিক থাকলে তিনি আমাদের এখানে ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে যোগ দেবেন।’

এই মুহূর্তে সিডন্স কোনো দলের কোচিংয়ের সঙ্গে জড়িত বলে জানা যায়নি। সর্বশেষ কোচিং করিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার রাজ্যভিত্তিক দল দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়াকে। তবে গত বছরের মার্চেই সে দায়িত্ব ছেড়ে দিয়েছেন তিনি।

default-image

এর আগে ২০০৭ সাল থেকে চার বছর বাংলাদেশ দলের কোচ ছিলেন সিডন্স। তাঁর অধীনে বাংলাদেশ ১৯ টেস্টের মধ্যে জিতেছে ২টি, হেরেছে ১৬টি। ওয়ানডেতে ৮৪ ম্যাচে ৫৩ হারের বিপরীতে জয় ছিল ৩১টি। টি-টোয়েন্টিতে অবশ্য ৮ ম্যাচের ৮টিতেই হেরেছে।

তবে জয়-হারের পরিসংখ্যান ছাপিয়েও সিডন্সের অবদানকে বাংলাদেশের ক্রিকেটে অন্য মর্যাদায় দেখা হয়। তাঁর সময়ে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে উন্নতি চোখে পড়েছিল বলে দাবি করেন অনেকে। পাশাপাশি বাংলাদেশ দলে প্রথমবার পূর্ণ কোচিং স্টাফ আনা, দলে পেশাদারি ছড়িয়ে দেওয়ার কৃতিত্বও দেওয়া হয় সিডন্সকে।

মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন