এবার প্লে-অফ দর্শক হিসেবেই দেখতে হবে চেন্নাইকে।
এবার প্লে-অফ দর্শক হিসেবেই দেখতে হবে চেন্নাইকে। ছবি: আইপিএল

তিনবারের চ্যাম্পিয়ন তারা। সবচেয়ে বেশি আটবার ফাইনাল খেলার কীর্তিটাও চেন্নাই সুপার কিংসের।  আইপিএলের সবচেয়ে সফল দলের গৌরবটা গত মৌসুমে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের কাছে হারালেও আরেকটি অনন্য অর্জনে কেউ ভাগ বসাতে পারেনি।

২০১৬ ও ২০১৭ সালে ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে নিষিদ্ধ ছিল চেন্নাই। সে কারণে আইপিএল খেলা হয়নি তাদের। বাকি ১০বারই প্লে-অফ খেলেছে তারা। কিন্তু এবার সে অর্জনটা হাতছাড়া হয়ে গেল। গ্রুপ পর্বের এখনো দুই ম্যাচ বাকি আছে তাদের। কিন্তু সে ম্যাচ দুটি শুধু আনুষ্ঠানিকতা। বাকি দুই ম্যাচ জিতলেও এবার আর প্লে-অফ খেলা হচ্ছে না চেন্নাইয়ের।

বিজ্ঞাপন

গতকাল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে হারিয়ে চতুর্থ জয় পেয়েছিল চেন্নাই। সে জয়ে কাগজে-কলমে প্লে-অফ খেলার স্বপ্ন বেঁচেছিল তাদের। কিন্তু অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি আশাবাদীদের দলে ছিলেন না। জয়ের পরই বলে দিয়েছেন এ মৌসুমের কথা ভুলে ২০২১-এর জন্য প্রস্তুত হতে। ছয় মাসের মধ্যে আরেকটি আইপিএল হবে। সে টুর্নামেন্টের জন্য এখন থেকেই প্রস্তুত হতে বলেছেন ধোনি, ‘আমাদের প্লে-অফে খেলার আসলে কোনো সুযোগ নেই। গাণিতিক সম্ভাবনাকে দূরে ঠেলে দিয়েই এটি বলছি।’

ধোনির কথা সত্যি প্রমাণ করতেই যেন কালই গাণিতিক অনেক ‘যদি-কিন্তু’ থেকে মুক্তি মিলল চেন্নাইয়ের। গতকাল বেন স্টোকসের দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরিতে মুম্বাইকে ৮ উইকেটে হারিয়ে দিয়েছে রাজস্থান রয়্যালস। এই হারে মুম্বাইয়ের খুব একটা ক্ষতি হয়নি। বাকি তিন ম্যাচে মাত্র একটি জয় পেলেই চলবে তাদের। এমনকি কিছু শর্ত পূরণ হলে হয়তো সেটাও দরকার হবে না তাদের। কিন্তু সর্বনাশ হয়ে গেছে চেন্নাই সুপার কিংসের। ১২ পয়েন্ট থেকে ৮ পয়েন্ট পাওয়া চেন্নাইয়ের আর চারে থাকার কোনো সম্ভাবনা নেই।

default-image

পয়েন্ট তালিকায় মুম্বাই ইন্ডিয়ানস, দিল্লি ক্যাপিটালস ও বেঙ্গালুরু ১৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষ তিনে আছে। কলকাতা পেয়েছে ১২ পয়েন্ট। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব ও রাজস্থানের পয়েন্ট ১০। কলকাতা ও পাঞ্জাবের তিনটি ম্যাচ বাকি। আর রাজস্থানের বাকি দুই ম্যাচ। চেন্নাইয়ের সমান আট পয়েন্ট পাওয়া সানরাইজার্স হায়দরাবাদেরও বাকি ৩ ম্যাচ।
চেন্নাই বাকি দুই ম্যাচ থেকে ৪ পয়েন্ট পেলে তাদের পয়েন্ট হবে ১২। কিন্তু যাদের সঙ্গে তাদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা সেই কলকাতা, পাঞ্জাব ও রাজস্থানও এ সময়ে একে অপরের মুখোমুখি হবে। ফলে কোনো না কোনো দল নিজেদের পয়েন্ট ১৪ করে ফেলবেই। আগে থেকেই যেহেতু তিনটি দলের ১৪ পয়েন্ট হয়ে গেছে, সেহেতু কলকাতা, রাজস্থান বা পাঞ্জাবের কেউ ১৪ পয়েন্ট পাওয়া মানেই ১২ পয়েন্ট পেয়ে কোনো লাভ নেই চেন্নাইয়ের।

আইপিএলের সবচেয়ে বড় তারকার এটা বুঝতে বাকি ছিল না। এ কারণেই হয়তো কাল ম্যাচের আগে আশার বেলুন ওভাবে চুপসে দিয়েছিলেন। বরং সমর্থকদের কাছে দাবি জানিয়েছেন, আইপিএলে দলের অবস্থান কোথায় সেটা ভুলে শুধু খেলা উপভোগ করতে, ‘টেবিলে কোথায় অবস্থান করছেন সেটা নিয়ে না ভেবে খেলা উপভোগ করা উচিত। যদি খেলা উপভোগ করতে না পারেন, তবে সেটা খুব নিষ্ঠুর ও যন্ত্রণাদায়ক হয়ে উঠবে। তরুণেরা যেভাবে জবাব দিয়েছে (সমালোচনার), তাতে আমি খুশি।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0