default-image

দ্য নিউজকে পিসিবির সূত্র বলেছে, ‘বাবর কখনোই অনাপত্তিপত্রের জন্য আবেদন করেনি। এটাই বলে দেয় যে সে শীর্ষ ক্যাটাগরির বিদেশি খেলোয়াড় হিসেবে ড্রাফটে থাকলেও টুর্নামেন্টটি খেলার জন্য আগ্রহী ছিল না। সে চাইলে ইংলিশ কাউন্টির যেকোনো দলেই সহজে খেলতে পারে। সে আসলে ঠাসা সূচির চেয়ে আসন্ন গ্রীষ্মে শুধু জাতীয় দলের হয়ে খেলাতেই মনোযোগ দিতে চায়।’

৮ থেকে ১২ জুনের মধ্যে পাকিস্তান ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলবে। এর সঙ্গে আছে শ্রীলঙ্কা সফর (দুই টেস্ট ও তিন ওয়ানডে) এবং নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ। এর বাইরে এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টি তো আছেই। এবারের গ্রীষ্মে পাকিস্তানের ব্যস্ত সূচি আছে। হয়তো এ কারণেই বাবর বিশ্রাম নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

default-image

এই মুহূর্তে ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটে খেলছেন পাকিস্তানের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়। এঁদের মধ্যে আজহার আলী খেলছেন উস্টারশায়ারে, নাসিম শাহ গ্লস্টারশায়ারে, শাহিন শাহ আফ্রিদি মিডলসেক্সে, মোহাম্মদ আব্বাস হ্যাম্পশায়ারে, মোহাম্মদ রিজওয়ান সাসেক্সে, হাসান আলী ল্যাঙ্কাশায়ারে। এ ছাড়া শান মাহমুদ, সাদ খান ও দানিশ আজিজও ইংল্যান্ডের লিগে খেলার জন্য চুক্তি করেছেন। এঁদের সবাইকেই অনাপত্তিপত্র দিয়েছে পিসিবি। পাকিস্তান বোর্ডের সূত্র দ্য নিউজকে বলেছে, বাবর চাইলেই অনাপত্তিপত্র পেতেন। কিন্তু বাবর এই সময়ে বিশ্রাম নিয়ে চাঙা হয়েই জাতীয় দলের জন্য মাঠে নামতে চাইছেন।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন