সারা টেন্ডুলকার।
সারা টেন্ডুলকার। ছবি: ইনস্টাগ্রাম

বিখ্যাত বাবার সন্তান হওয়ার সুবিধা কম নয় ঠিকই। জীবনের অনেক কঠোর দিক দেখতে হয় না তাঁদের। অর্থবিত্ত তো আছেই, যশ–খ্যাতিরও কমতি কখনো হয় না। কিন্তু এর যে বিড়ম্বনাও কম নয়! ভারতের ব্যাটিং কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারের মেয়ে সারা টেন্ডুলকার যা টের পাচ্ছেন গত কিছুদিনে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ২৩ বছর বয়সী সারাকে উত্ত্যক্ত করে চলছিলেন এক ব্যক্তি। নিজে তেমন বিশেষ কিছু না করেও বাবা শচীন টেন্ডুলকারের উপার্জিত অর্থে আয়েশ করছেন সারা—এ-ই ছিল দৃশ্যত অন্যের ব্যাপারে অযথা নাক গলানো সেই ব্যক্তির। সম্প্রতি তাঁকে শ্লেষ মাখানো দাঁতভাঙা জবাব দিয়েছেন সারা।

default-image

টেন্ডুলকারের মেয়ে বলে হয়তো সংবাদের শিরোনামে তাঁর নাম আসে মাঝেমধ্যে, তবে সারা নিজেও কম প্রতিষ্ঠিত নন। মুম্বাইয়ের ধীরুভাই আম্বানি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে পড়ালেখা শেষে লন্ডনের ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন (ইউসিএল) থেকে মেডিসিন গ্র্যাজুয়েট। এমন একজনকে তো সফল বলতেই হয়! হ্যাঁ, সারার যে ইনস্টাগ্রামে ১২ লাখেরও বেশি অনুসরণকারী, এর পেছনে হয়তো তাঁর ‘টেন্ডুলকারের মেয়ে’ পরিচয়ের হাত আছে।

বিজ্ঞাপন

তা যা-ই হোক, কিন্তু সে জন্য সারাকে ‘বাবার টাকা ওড়াচ্ছেন’ বলে খোঁচা শুনতে হবে! তাও কিনা একটা কফি কেনার ছবি দেওয়ায়! এমনটাই হয়েছে গতকাল শুক্রবার। ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে একটা ভিডিও দিয়ে সারা ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘ব্লুটোকাই কফি আসলে জীবন বাঁচায়।’ খুবই সাধারণ একটা স্টোরি। ওই কফি কতটা পছন্দ করেন, সেটি বোঝাতেই মজা করে সারাহ এমন লিখেছেন হয়তো।

default-image

কিন্তু এক উত্ত্যক্তকারীর তা পছন্দ হলো না। সারার স্টোরির জবাবে মন্তব্য করেছেন শ্লেষাত্মক ভঙ্গিতে, ‘এই যে বাবার টাকা নষ্ট করছে!’

সারার খুব গায়ে লেগেছে তাতে। টেন্ডুলকারের মেয়ে, তাই ওই উত্ত্যক্তকারীর জবাবটির স্ক্রিনশট নিয়েছেন। এরপর সেটি আবার ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছেন মজার ক্যাপশন দিয়ে, সেখানে লেখা, ‘দেখুন...ক্যাফেইনের পেছনে যত টাকাই খরচ করবেন, সেটা খুব ভালো খরচ, টাকা নষ্ট করা নয়।’ পাশাপাশি হাসির ইমোজি, তার পাশে ব্র্যাকেটে লেখা চারটা শব্দ—টাকাটা যারই উপার্জন করা হোক না কেন!’

default-image

ওই একই উত্ত্যক্তকারী এর আগে সারার ভাই ও শচীন টেন্ডুলকারের ছেলে অর্জুন টেন্ডুলকারকে নিয়ে খোঁচা মেরেছেন। বাবার মতো প্রতিভাবান না হলেও অর্জুন এখন পেশাদার ক্রিকেটার। এবার আইপিএলে ২০ লাখ রুপির ভিত্তি মূল্যে অর্জুনকে কিনে নিয়েছে টেন্ডুলকারেরই পুরোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। যদিও বাঁহাতি পেসারের খেলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

default-image

তা নিলামে মুম্বাই অর্জুনকে কেনার খবর জানানো পোস্টের নিচে ওই উত্ত্যক্তকারী লিখেছেন, ‘সবচেয়ে কম দামি খেলোয়াড়।’ এমন বাঁকা কথা অবশ্য তখন অনেকেই বলেছেন। মুম্বাইয়ের রাজ্য ক্রিকেটে কালেভদ্রে সুযোগ পাওয়া অর্জুন শুধু ‘টেন্ডুলকারের ছেলে’ বলেই তাঁকে কিনেছে মুম্বাই—এমন বাঁকা কথা বলে স্বজনপ্রীতির অভিযোগও তোলেন অনেকে। তবে সারা তখন ভাইয়ের মুম্বাইয়ে যোগ দেওয়ার খবর জানানো পোস্টে লিখেছে, ‘এই অর্জনটা তোমার কাছ থেকে কেউ নিয়ে যেতে পারবে না। এটা তোমারই।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন