স্মিথ ও তাঁর স্ত্রী ড্যানি উইলিস সিডনির কিংস রোডের এই বাড়িতে কিছুদিন ছিলেন। চার বেডরুম ও তিন বাথরুমের এ বাড়ির সংস্কারকাজ করে এরপর চেহারা বদলে ফেলেন তাঁরা। বাড়িটি যখন কিনেছিলেন বাংলাদেশি মুদ্রায় তার দাম পড়েছিল ৪২ কোটি ১২ লাখ ৮৬ হাজার টাকা। বিক্রি করলেন প্রায় ৭৯ কোটি ২৩ হাজার টাকায়। অর্থাৎ, স্মিথ–উইলিস দম্পত্তি এই বাড়ি বিক্রি করে ৩৭ কোটি টাকার বেশি লাভ করেছেন।

default-image

সংস্কারকাজ করে বাড়ির চেহারা বদলে ফেলার পর তা নিলামে তোলা হয়। চারজন আগ্রহী ক্রেতা এই নিলামে অংশ নিতে নাম নিবন্ধন করেন। ১১.৫ মিলিয়ন অস্ট্রেলিয়ান ডলার থেকে দাম হাঁকা শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত লড়াই হয় দুজন ক্রেতার মধ্যে। ‘১১.৫ মিলিয়ন (অস্ট্রেলিয়ান) ডলার দাম হেঁকে নিলাম শুরু হয়। এরপর দুজন ক্রেতা দামটা ১২ মিলিয়নের ওপাশে নিয়ে যান’—বলা হয় সিডনি মর্নিং হেরাল্ডের প্রতিবেদনে।

৭৬৬ বর্গমিটার আয়তনের এই বাড়িতে সমুদ্রের দিকে তাক করা এই বাড়িতে ব্রেকফাস্ট বার, হোম থিয়েটার, তাপানুকূল সুইমিং পুল, ফায়ারপ্লেস, মেঝের স্বয়ংক্রিয় তাপ নিয়ন্ত্রণের সঙ্গে আছে অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তাব্যবস্থা।

এমনিতে ক্রিকেট থেকে আয়টা ভালোই করেন স্মিথ। বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যানের ক্রিকেট থেকে বার্ষিক আয় প্রায় তিন মিলিয়ন ডলারের মতো। এর পাশাপাশি রিয়েল এস্টেটের ব্যবসার সঙ্গেও স্মিথ যুক্ত বেশ কিছুদিন ধরেই। আইন থেকে পাস করা স্ত্রীর সঙ্গে মিলেই এ ব্যবসা করেন তিনি। বেশ কয়েকটি জায়গায় এমন বিলাসবহুল বাড়ি আছে তাঁর।

default-image

২০১৫ সালে বামেইন ইস্ট নামের জায়গায় দুই মিলিয়ন ডলার দিয়ে একটি বাড়ি কিনেছিলেন। সপ্তাহে ২ হাজার ২০০ ডলার দিয়ে ভাড়া দেওয়া হয় সেটি। ওই অঞ্চলেই ২০১৬ সালে ১ দশমিক ৪১ মিলিয়ন ডলারে আরেকটি বাড়ি কেনেন সাবেক অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক। সেটি ভাড়া দেওয়া হয় সপ্তাহে ১ হাজার ৬০০ ডলারের বিনিময়ে।

অস্ট্রেলিয়া দলের সঙ্গে এখন শ্রীলঙ্কা সফরে আছেন স্মিথ। গলে আজ স্বাগতিকদের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নেমেছে অস্ট্রেলিয়া।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত প্রথম দিনে মধ্যাহৃভোজনের আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২ উইকেটে ৯৯ রান তুলেছে অস্ট্রেলিয়া। ১৩ রানে অপরাজিত ছিলেন স্মিথ।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন