default-image

এরপর খালেদ আহমেদের বলে আরেকটি চার মারেন, পরের ওভারে আল-আমিনকে টানা দুটি। ১৫ বলেই ৪০ রান হয়ে যায় সাকিবের। লিস্ট ‘এ’-তে বাংলাদেশের দ্রুততম ১৮ বলে ফিফটির রেকর্ডও নাগালেই ছিল এ বাঁহাতির।

মুখোমুখি ১৭তম বলে আল-আমিনকে ছয় মেরে ৪৭ রানে পৌঁছে গিয়েছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত অর্ধশতক পূর্ণ করতে তাঁর লাগে ২১ বল, আল-আমিনের বলে ডাবলস নিয়ে পূর্ণ করেন সেটি।

বাংলাদেশের লিস্ট ‘এ’-তে বলের হিসেবে এর চেয়ে দ্রুততম ফিফটি আছে আর তিনটি। ২০১৮-১৯ মৌসুমে ফরহাদ রেজার ১৮ বলে ফিফটিই দ্রুততম। ১৯ বলে ফিফটি আছে নাজমুল হোসেন ও জ্যাকব ওরামের।

বিকেএসপিতে টসে জিতে ব্যাটিং নিয়েছিল রূপগঞ্জ। ইরফান শুক্কুর ও রকিবুল হাসানের উদ্বোধনী জুটিতেই তোলেন ৭১ রান। দুজন অবশ্য ফেরেন ৮ রানের ব্যবধানেই। তবে তৃতীয় উইকেটে সাব্বির ও নাঈম ইসলাম যোগ করেন ১০৩ রান। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা নাঈম আজ থেমেছেন অর্ধশতকের ৮ রান আগেই।

default-image

এরপরই শুরু হয় সাকিব-ঝড়। সাব্বির রহমানের সঙ্গে তাঁর জুটিতে আসে ৮০ রান, মাত্র ৪৪ বলেই। ২৬ বলে ৫৯ রানের ইনিংসে সাকিব ৬টি চারের সঙ্গে মারেন ৩টি ছয়।
সাব্বিরের অবশ্য শতক পাওয়ার মতো সময় ছিল, তবে ৪৯তম ওভারের তৃতীয় বলে মারাজ মাহবুবের বলে উইকেটকিপার আকবর আলীর হাতে ক্যাচ তোলেন তিনি। শেষ ওভারে রূপগঞ্জ তুলতে পারে মাত্র ৪ রান।

দিনের অন্য ম্যাচে মিরপুরে আবাহনীকে ২২৯ রানেই আটকে দিয়েছে শেখ জামাল। এ ম্যাচে জিতলেই প্রথমবারের মতো শিরোপা জিতবে শেখ জামাল। অবশ্য রূপগঞ্জ হারলেও শিরোপা নিশ্চিত হবে শেখ জামালের, আবাহনীর সঙ্গে তাদের ম্যাচের ফল যা-ই হোক না কেন।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন