বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এই ‘নো বল’ অবশ্য বিতর্ক ছড়িয়েছে দ্বিতীয় দিনে। নিজের প্রথম ৫ ওভারে মোট ১৪ বার ওভার স্টেপিং করেছিলেন স্টোকস। কিন্তু এর মধ্যে মাত্র দুটি নো বল ধরা হয়। চ্যানেল সেভেনের ক্যামেরায় স্টোকসের এতগুলো নো বল ধরা পড়ার পর এ নিয়ে চলছে বিতর্ক। রিভিউ প্রযুক্তি ঠিকমতো কাজ না করাতেই নাকি এই সমস্যা। এই টেস্ট ম্যাচটি ২০২০ সালের আগের কন্ডিশনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। নতুন কন্ডিশনে বোলারের প্রতিটি ডেলিভারির দিকেই লক্ষ রাখার কথা টিভি আম্পায়ারের। কেবল আউট হওয়ার সময় ওভার স্টেপিংয়ের ব্যাপারটি এই টেস্টে টিভি আম্পায়ার দেখছেন। আর সেটিতেই বেঁচে গিয়েছিলেন ওয়ার্নার।

default-image

ওয়ার্নার শেষ পর্যন্ত ৯৪ রানে ফেরেন রবিনসনের বলেই। স্টুয়ার্ট ব্রডের জায়গায় সুযোগ পাওয়া রবিনসন আজ দুর্দান্ত বোলিং করেছেন। ওয়ার্নার ও হারিস ছাড়াও তিনি ফেরান ক্যামেরন গ্রিনকে। ক্রিস ওকসের বলে ফেরেন অ্যালেক্স ক্যারি। স্টিভ স্মিথকে ফেরান মার্ক উড।

ওয়ার্নারের সেঞ্চুরি না পাওয়া যদি আক্ষেপ হয়, তাহলে সেই আক্ষেপ ঘুচিয়েছেন হেড। তিনি ৯৫ বলে ১১২ রান করে ঝড় তোলেন। তাঁর ইনিংসে ছিল ১২টি চার ও ২টি ছক্কা। তাঁর ব্যাটেই দিন শেষ অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ দাঁড়ায় ৭ উইকেটে ৩৪৩।

রবিনসন ৪৮ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। একটি করে উইকেট পেয়েছেন জো রুট, জ্যাক লিচ ও মার্ক উড।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন