রোহিত শর্মার ফিটনেস নিয়ে ভারতে বিতর্ক যেন থামছেই না!
রোহিত শর্মার ফিটনেস নিয়ে ভারতে বিতর্ক যেন থামছেই না! ছবি: আইপিএল

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড মহাবিপদেই পড়েছে। অস্ট্রেলিয়া সফরের জন্য দল ঘোষণা করেছে তারা গত ২৬ অক্টোবর। তিন সংস্করণের ৩২ জনের স্কোয়াডে নেই সহ-অধিনায়ক রোহিত শর্মা। তাঁকে বাদ দেওয়ার মতো দুঃসাহস দেখায়নি বোর্ড। কিন্তু গত ১৮ অক্টোবর আইপিএলের ম্যাচে পাওয়া চোটের কারণে তাঁকে দলে রাখেননি নির্বাচকেরা। কিন্তু একেবারে বাতিলের খাতায়ও ফেলে দেওয়া হয়নি। তাঁকে পর্যবেক্ষণের মধ্যে রাখা হবে সেটা জানিয়েছিল বিসিসিআই।

বিসিসিআইয়ের পর্যবেক্ষণের খবরেও সমর্থকদের মন ভরেনি। ভারতের দল ঘোষণার পরপরই মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের টুইটে দেখা গেছে নেটে অনুশীলন করতে নেমে গেছেন রোহিত। এক মাস পর যে সিরিজ শুরু হবে, সে সফরের দলে এত আগ থেকেই একজনকে কেন বাদ দিতে হবে—সে যুক্তিটা বুঝছেন না সাবেক ক্রিকেটাররাও। বিতর্ক আরও জটিল হওয়ার আগেই তাই সতর্ক হয়ে গেছে বোর্ড। আগামীকাল রোববার বোর্ডের চিকিৎসক দল রোহিত শর্মার স্বাস্থ্যপরীক্ষা করে সিদ্ধান্ত জানাবে।

বিজ্ঞাপন

একদিকে রোহিত দলে ডাক পাওয়ার মতো ফিট নন বলে জানানো হচ্ছে, ওদিকে নেটে চার-ছক্কা মারছেন রোহিত। ভারতীয় সমর্থকদের হতবুদ্ধি হওয়াই স্বাভাবিক। তবে আজ বিসিসিআইয়ের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন নেটে ওভাবে ব্যাট করা আর ম্যাচে খেলতে নামার মধ্যে বেশ পার্থক্য আছে।

default-image

আজ এএনআইকে বোর্ডের কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ‘রোহিতের অবস্থা কাল পরীক্ষা করা হবে এবং এরপরই জানা যাবে সে সফরে যেতে পারবে কি না। হ্যামস্ট্রিং চোটের ক্ষেত্রে যা হয়, মূল ঝামেলাটা দৌড়ের সময় হয়। গতি বাড়ানো ও কমানোতে মনোযোগ দিতে হবে, দেখতে হবে সে পুরোপুরি সেরে উঠেছে কি না। নাকি আরও সময় লাগবে।’

আগামীকাল কী পরীক্ষা হবে সেটা আরেকটু ব্যাখ্যা করে বলেছেন এই বোর্ড কর্মকর্তা।

হ্যামস্ট্রিং চোট নিয়ে কেন এত বিতর্ক হচ্ছে, সেটারও একটা ব্যাখ্যা দাঁড় করেছেন, ‘যদি দ্বিতীয় পর্যায়ের চোট না হয় তবে হ্যামস্ট্রিং চোটে হাঁটতে কিংবা শট খেলতে সমস্যা হয় না। মূল সমস্যা হয় জোরে দৌড়ানোর সময় কিংবা উইকেটে রান নেওয়ার সময়। হ্যামস্ট্রিংয়ের পেশির মূল পরীক্ষা হয় যখন হঠাৎ কাউকে দৌড় দিতে হয়। ধরুন, দ্রুত একটা রান নিতে চাইলেন কিংবা দুই রানের জন্য যখন দ্রুত ঘুরতে যান তখন। যখন দৌড়ের শুরুতে গতি বাড়ান বা শেষে কমাতে যান, তখন হ্যামস্ট্রিংয়ের ভূমিকা থাকে। এ সময় হ্যামস্ট্রিংয়ের পেশির কার্যক্ষমতা শতভাগ টের পাওয়া যায়। যদি পুরোপুরি সেরে উঠতে পারেন, তাহলে গতি বাড়াতে বা কমাতে কোনো অসুবিধা হয় না।’

আইপিএল শেষ হলেই অস্ট্রেলিয়ার দিকে উড়াল দেবে ভারত। এ জন্য দেশ থেকে ইতোমধ্যে কোচিং স্টাফ ও টেস্ট দলের চেতেশ্বর পূজারা ও হনুমা বিহারিকে উড়িয়ে নেওয়া হয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0