বিপিএল খেলা আমেরিকানকে আইপিএলে আনছেন শাহরুখ

বিজ্ঞাপন
default-image

এখন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক হলেও তাঁর জন্ম পাকিস্তানে। উপমহাদেশের ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সঙ্গেও পরিচয়টা বেশ ভালো। বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা অবশ্য তাঁকে কতটা মনে রেখেছেন কে জানে!

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএলে) খেলেছেন ২০১৮/১৯ মৌসুমে। খুব যে আলো ছড়িয়েছেন, তা নয়। খুলনা টাইটানসের হয়ে ব্যাট হাতে নামা হয়নি, বল হাতে দুই ম্যাচে করেছেন ৭ ওভার। তাতে উইকেট পেয়েছেন দুটি, রান দিয়েছেন ৬১, একটি মেডেন নিয়েছেন। বাংলাদেশের বাইরে করাচি কিংসের হয়ে খেলেছেন পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল)। উপমহাদেশের বাইরে আফগানিস্তান প্রিমিয়ার লিগেও খেলেছেন। আবুধাবিতে টি-টেন লিগেও খেলেছেন বেঙ্গল টাইগার্স ও দিল্লি বুলসের হয়ে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তাঁর নাম? মোহাম্মদ আহসান আলী খান। এবার ভারতের টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ আইপিএলেও খেলতে যাচ্ছেন ২৯ বছর বয়সী পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত যুক্তরাষ্ট্রের এই পেসার। তাঁকে আনছে শাহরুখ খানের দল কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর)। বলতে গেলে ইতিহাসই গড়তে চলেছেন আলী। আইপিএলে যে এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের কেউ খেলেনি! একদিক থেকে পাকিস্তানিদের মধ্যেও অন্যরকম ‘দাপট’ তাঁর।

আইপিএলে যেখানে কোনো পাকিস্তানির খেলার সুযোগ হচ্ছে না, নাগরিকত্ব বদলে আমেরিকান হওয়ায় সেই সুযোগটা পাচ্ছেন পাকিস্তানেরই মাটিতে জন্ম নেওয়া আলী।  কলকাতায় তাঁর আসার পেছনে নিজের পারফরম্যান্সের প্রভাব তো আছেই, কিন্তু অন্যের কপাল পোড়ারও ভূমিকা আছে। ইংলিশ পেসার হ্যারি গার্নিকে এবার দলে টেনেছিল কলকাতা। কিন্তু কাঁধের চোটে অস্ত্রোপচার করাতে হচ্ছে গার্নিকে, আইপিএল থেকে তাই সরে দাঁড়িয়েছেন তিনি। তাঁর বদলে আলী খানকে নিয়ে এসেছে কলকাতা। গত মৌসুমেও কলকাতার ‘স্ট্যান্ডবাই’ তালিকায় ছিলেন আলী।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

এবার কলকাতার মূল দলে তাঁর আসার নেপথ্যে গার্নির চোটের পাশাপাশি বড় ভূমিকা ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) শাহরুখেরই দল ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের জার্সিতে আলীর পারফরম্যান্স। এবার সিপিএলের শিরোপা জেতার পথে ১২ ম্যাচের সবগুলোই জিতেছে ত্রিনবাগো। সে পথে আলী আট ম্যাচে নিয়েছেন আট উইকেট, তাঁর ইকোনোমি রেট ৭.৪৩। শেষ মুহূর্তের বিকল্প হিসেবে খুব একটা মন্দও নন। আলীর বলের গতি ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটারের আশপাশে। সাধারণত স্লগ ওভারে বোলিং করেন। ভালো ইয়র্কার দিতে পারেন বলেও খ্যাতি আছে।

২০১৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে নামিবিয়ার বিপক্ষে ৪৯তম ওভারে তাঁর বোলিং সম্ভবত আলীর ক্যারিয়ারের বড় হাইলাইটস। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ানডে স্ট্যাটাস প্রাপ্তির লড়াই টিকিয়ে রাখতে সেই ম্যাচটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ ছিল। শেষ দিকে ১২ বলে ১৪ রান দরকার ছিল নামিবিয়ার, সেখানে বোলিংয়ে এসে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচটা জিতিয়ে দেন আলী। ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম জয়ের ম্যাচের কথাও হয়তো বিশেষভাবে স্মৃতিতে রাখবেন আলী। কেনিয়ার বিপক্ষে সে ম্যাচে ম্যাচসেরা হয়েছিলেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তিনি যে আসছেন কলকাতার হয়ে খেলতে, সেটির ইঙ্গিত মেলে ডোয়াইন ব্রাভোর ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে। ত্রিনবাগোতে আলীর সতীর্থ ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান অলরাউন্ডার আইপিএলে খেলেন চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে। আজ নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে একটি ভিডিও পোস্ট করে ব্রাভো লেখেন, ‘পরের গন্তব্য-দুবাই।’

বিমানে ধারণ করা যে ভিডিওতে অন্য অনেকের সঙ্গে আলীকেও দেখা যায়। এই ব্রাভোই প্রথম ‘আবিষ্কার’ করেন আলীকে, ২০১৮ সালের জুলাইয়ে কানাডায় গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে । সেখানে আলীকে দেখে পছন্দ হওয়ায় ২০১৮ সালে সিপিএলে তাঁকে নিয়ে আসেন ব্রাভো। অভিষেক মৌসুমেই ১২ ম্যাচে ১৬ উইকেট নেন আলী, যা পেসারদের মধ্যে ছিল দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। এরপর থেকেই তাঁর টি-টোয়েন্টি লিগগুলোতে ফেরি করে বেড়ানো। পরের গন্তব্য—আইপিএল।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন