বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ব্যাটিং অর্ডারের তিন ও চার নম্বরে যথাক্রমে মারনাস লাবুশেন ও স্টিভেন স্মিথকে দেখা যাবে। ম্যাথু ওয়েড না থাকার কারণে ব্যাটিং অর্ডারের পাঁচ নম্বর জায়গাটির জন্য লড়াই হবে দলে ফেরত আসা হেড আর খাজার মধ্যেই। ২০১৯ সালের সর্বশেষ অ্যাশেজে খেলেছিলেন খাজা, এরপর আর টেস্ট দলে দেখা যায়নি তাঁকে।

কিন্তু এবার শেফিল্ড শিল্ডে যে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন, খাজাকে না নিয়ে উপায় ছিল না অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচকদের। ৬৭.৩৩ গড়ে ৪০৪ রান করেছেন খাজা, সঙ্গে আছে দুটি সেঞ্চুরি।

default-image

ওদিকে ফর্মে আসার সুবিধা পাচ্ছেন হেডও। একসময় অস্ট্রেলিয়ার পরবর্তী অধিনায়ক হিসেবে তাঁকে ভাবা হলেও দলে নিজের জায়গা পাকা করতে পারেননি তিনি। এবার ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো খেলে নির্বাচকদের নজরে এসেছেন। প্রধান নির্বাচক জর্জ বেইলি সে কারণই উল্লেখ করেছেন, ‘ক্যামেরন গ্রিনের পর রানের হিসাবে ট্রাভিস হেড সফল এক মৌসুম কাটিয়েছে। এবারও বেশ ভালো শুরু করেছে। সে দলের রানের চাকা সচল রাখে, দ্রুত রান তুলে প্রতিপক্ষের ওপর চাপ সৃষ্টি করে।’


খাজাকে নিয়েও প্রশংসামুখর বেইলি, ‘উসমান খাজাও ফর্মে আছে বেশ। ব্যাটিং লাইনআপে স্থিরতা আনে সে। টেস্ট পর্যায়ে ও একজন নির্ভরযোগ্য রান সংগ্রাহক। যেকোনো পজিশনে ব্যাট করতে পারে সে।’

default-image

পেস বিভাগে যথারীতি ডাক পেয়েছেন তিন নির্ভরযোগ্য তারকা মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিন্স ও জশ হ্যাজলউড। হুট করে জেমস প্যাটিনসন অবসর নিয়ে নিয়েছেন। এ কারণে দলের চতুর্থ পেসার হিসেবে খেলার জন্য স্কোয়াডে ডাক পেয়েছেন মাইকেল নেসের ও ঝাই রিচার্ডসন। মূল স্পিনার নাথান লায়নের বিকল্প হিসেবে স্কোয়াডে রাখা হয়েছে মিচেল সোয়েপসনকে।

অ্যাশেজের প্রথম দুই টেস্টের জন্য অস্ট্রেলিয়া স্কোয়াড
টিম পেইন (অধিনায়ক)
ডেভিড ওয়ার্নার
স্টিভেন স্মিথ
মার্কাস হ্যারিস
মারনাস লাবুশেন
প্যাট কামিন্স
মিচেল স্টার্ক
ক্যামেরন গ্রিন
জশ হ্যাজলউড
ট্রাভিস হেড
উসমান খাজা
নাথান লায়ন
মাইকেল নেসের
ঝাই রিচার্ডসন
মিচেল সোয়েপসন

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন