বিশ্বকাপ অভিষেকের অপেক্ষায় নিগাররা

নিউজিল্যান্ডে আজ শুরু হচ্ছে মেয়েদের ওয়ানডে বিশ্বকাপ। বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ আগামীকাল ভোরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে।

বিশ্বকাপে কি আলো ছড়াতে পারবেন বাংলাদেশের মেয়েরা? ফাইল ছবি

বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট নতুন সূর্যোদয় দেখবে কাল। মেয়েদের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে যে এবারই অভিষেক হচ্ছে বাংলাদেশের। বাংলাদেশে ভোরের আলো ফোটার আগেই নিউজিল্যান্ডের ডানেডিনে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে মাঠে নামবে নিগার সুলতানার দল।

বাংলাদেশ চারটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলে ফেলেছে—এ তথ্য মনে করিয়ে দিয়ে অবশ্য ‘অভিষেক’ শব্দটায় আপত্তি তুলতে পারেন কেউ। তবে টি-টোয়েন্টির রমরমা যুগেও খোদ আইসিসিও ওয়ানডে বিশ্বকাপটাকেই আসল বিশ্বকাপ মনে করছে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মতো তাই ৫০ ওভারের বিশ্বকাপের নামের আগে ‘ওয়ানডে’ শব্দটা নেই। এটি শুধুই মেয়েদের বিশ্বকাপ ক্রিকেট।

বাংলাদেশের অভিষেকের এক দিন আগেই আজ উদ্বোধন হচ্ছে সেই বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরের। মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আট দলের ৩১ দিন ও ৩১ ম্যাচের বিশ্বকাপ শেষ হবে আগামী ৩ এপ্রিল।

লিগ পদ্ধতির প্রথম পর্ব শেষে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ চার দল উঠবে সেমিফাইনালে। ৩ এপ্রিল নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটের সদর দপ্তর ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে ফাইনাল।

বাংলাদেশের মেয়েরা যে ক্রিকেট খেলতে পারেন, সেটির প্রমাণ দেওয়াটাকেই বড় লক্ষ্য করেছেন দলের অধিনায়ক নিগার সুলতানা। আইসিসির ওয়েবসাইটকে তিন দিন আগে নিগার বলেছেন, বিশ্বকাপ মঞ্চে নিজেদের সেরাটা দিয়েই বিশ্বকে ক্রিকেট–সক্ষমতার প্রমাণ দিতে চান তাঁরা।

ওই কাজও যে সহজ হবে না, দুটি প্রস্তুতি ম্যাচের ফল সেটিই বলে দিচ্ছে। অনুমিতভাবেই প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের কাছে বড় ব্যবধানে হেরেছেন বাংলাদেশের মেয়েরা। দ্বিতীয় ম্যাচটিতে শক্তিমত্তায় কাছাকাছি মানের পাকিস্তানের কাছে হেরেছে নিগারের দল। বিশ্বকাপের মূল আসরে বাংলাদেশের শিকারের লক্ষ্য থাকবে এই পাকিস্তানই।

বাংলাদেশের জন্য সেমিফাইনালে খেলার স্বপ্ন দেখাটা বাড়াবাড়িই। তবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও ভারত শেষ চারে যেতে না পারলেই নাম লেখাবে ব্যর্থদের সারিতে। র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর দল অস্ট্রেলিয়াই ফেবারিট শিরোপার লড়াইয়ে।