পিসিবিকে আবারও সুইং ঝাড়লেন আমির।
পিসিবিকে আবারও সুইং ঝাড়লেন আমির।ছবি: এএফপি

পাকিস্তান ক্রিকেটে প্রতিভার কমতি নেই। কিন্তু পরিচর্যার অভাবে বেশির ভাগ ঝরে পড়ে অকালেই। কিংবা প্রতিভার অপচয়ও করা হয়। পরিচর্যা ও সমর্থনের অভাব নিয়ে কথা উঠলে অনেকে দুষে থাকেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে (পিসিবি)। মোহাম্মদ আমিরও এর ব্যতিক্রম নন। জশপ্রীত বুমরার উদাহরণ টেনে পিসিবির প্রতি তোপ দাগলেন পাকিস্তানের সাবেক এ পেসার।

আর মাসখানেক পরই ২৯ বছর বয়স পূর্ণ হবে আমিরের। গত বছর ডিসেম্বরে তিনি সবাইকে চমকে দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেন। পিসিবির ‘মানসিক অত্যাচার সইতে না পেরে অবসর’—কথাটা তখন বলেছিলেন ধূমকেতুর মতো আর্বিভাব ঘটানো এ পেসার। এ নিয়ে বরাবরই পিসিবির সমালোচনা করে আসছেন তিনি। পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে আরও একবার বোর্ডের সমালোচনা করলেন বাঁহাতি এ পেসার।

আমির স্পষ্ট ভাষায় বুঝিয়েছেন, খেলোয়াড়দের প্রতি সেভাবে কখনো সমর্থন দেয় না পিসিবি। এ নিয়ে তুলনা হিসেবে তিনি টেনে আনেন প্রতিবেশী দেশ ভারতের ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিসিআই)। তারা যশপ্রীত বুমরাকে যে অবস্থানে তুলে এনেছে, সে কথা বলেই বিষয়টি বুঝিয়ে দেন আমির, ‘মাত্র চার–পাঁচ ম্যাচ দেখে বিচার করাটা সঠিক মানসিকতা হতে পারে না। মনে করে দেখুন, যশপ্রীত বুমরা প্রথম ১৬ ম্যাচে মাত্র ১ উইকেট পেয়েছিল, যখন সে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ খেলছিল। কিন্তু কেউ এ নিয়ে প্রশ্ন তোলেনি। কারণ, তারা জানত সে ম্যাচ জেতানো বোলার। সে সময় তাকে সমর্থন দেওয়া উচিত ছিল এবং ভারতীয় ম্যানেজমেন্ট সে কাজটিই করেছে।’

default-image
বিজ্ঞাপন

খেলোয়াড়দের প্রতি বোর্ডের দায়িত্বটা কী, সে কথাও বলেন আমির, ‘আপনার কাজটাই হলো খেলোয়াড়কে সাহায্য করা, বাজে পারফরম্যান্স করলে ছুড়ে ফেলে দেওয়া নয়। তেমন কিছু হলে আমাদের দায়িত্ব হলো ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর মতো খেলোয়াড়দের নিয়ে একটা দল গড়ে দেওয়া। তাহলে (পিসিবি) আপনারা একটু আরামে থাকতে পারবেন, কিছুই করতে হবে না।’ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আর ফেরার ইচ্ছা নেই আমিরের। তবে পিসিবি ব্যবস্থাপনার সঙ্গে তাঁর কোনো ব্যক্তিগত রেষারেষি নেই বলেও জানিয়ে দেন স্পটফিক্সিংয়ে জড়িয়ে সাজা খাটা এ পেসার।

‘অবসরের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে আমি সবকিছু ভেবে দেখেছি। আমি ক্রিকেটটা উপভোগ করছি এবং পরিবারকেও সময় দিতে পারছি। তাই এ মুহূর্তে ফেরার কোনো ইচ্ছা নেই। শুধু পারফরম্যান্স ইস্যু হলে কখনো অবসরের সিদ্ধান্ত নিতাম না। কিন্তু আমার টেস্ট ক্রিকেট ছেড়ে দেওয়া নিয়ে তাদের (পিসিবি) বিবৃতিতে ভীষণ আঘাত লেগেছিল। তাদের সঙ্গে আমার কোনো ব্যক্তিগত দ্বন্দ্ব নেই। তারা আমার বড় এবং খেলাটির কিংবদন্তি’—বলেন আমির।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন