default-image

বাইরে ধোঁয়া দেখা যায়নি। কিন্তু ভেতরে ভেতরে জ্বলছিল তুষের আগুন। পারিশ্রমিক নিয়ে আবারও লেগে যাবে না তো! অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের এমন শঙ্কা ভেতরে ভেতরে জাগলেও আগুন নিভে গেল। আজ ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) এক সিদ্ধান্তে পাল্টে গেল পরিস্থিতি।

করোনাভাইরাস মহামারিতে আর্থিক ক্ষতির হিসেব কষেছিল সিএ। এ নিয়ে বিতর্কিত কিছু পরিকল্পনাও করেছিল তারা। অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন (এসিএ) তা নাকচ করে লিখিত নোটিশ দিয়ে সরাসরি বিপক্ষে অবস্থান নেয়। প্রয়োজনে আদালত পর্যন্তও যেত তারা। কিন্তু সিএ আজ সব পরিকল্পনা প্রত্যাহার করে নেওয়ায় মিটে গেল ঝামেলা।
খেলোয়াড়দের সঙ্গে চুক্তি নিয়ে 'নতুন করে' কথা বলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সিএ। গত মাসে সিএ প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে কেভিন রবার্টস ইস্তফা দেওয়ার পর এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো। তাঁর জায়গায় অন্তর্বর্তীকালীন হিসেবে দায়িত্ব পাওয়া নিক হকলে এসেই ঘোষণা দিয়েছিলেন, দুই পক্ষের (খেলোয়াড় ও বোর্ড) বিবাদের অবসান ঘটাবেন।
সিএ আজ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ক্ষতির অংক নিয়ে পরিষ্কার ধারণা না পাওয়া পর্যন্ত পরিকল্পনাগুলো মুলতবি রাখা হবে। এরপরই বিপক্ষে অবস্থানের লিখিত নোটিশ তুলে নেয় এসিএ। 'আজকের সমঝোতা কোভিড-১৯ এর বিপক্ষে ক্রিকেটের কার্যক্রমকে এক ধাপ এগিয়ে দিল' বলা হয় সিএ-র বিবৃতিতে। এসিএ সভাপতি অ্যালিস্টার নিকোলসন বোর্ডের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন।

করোনা মহামারিতে এখন পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার মাত্র দুটি সফর বাতিল হয়েছে। বাংলাদেশে দুই টেস্টের সফর এবং জিম্বাবুয়ের সংক্ষিপ্ত সংস্করণের জন্য সফর। অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করতে পারবে কি না তা নিয়ে সন্দেহ আছে। তবে ডিসেম্বরে ভারতের বিপক্ষে চার টেস্টের সিরিজ মাঠে গড়ানোর সম্ভাবনা দেখছেন অনেকেই। এ ছাড়া বিগ ব্যাশেও দর্শক সমাগমের আশা করছে সিএ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0