বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

৩৩ বছর বয়সী ব্রাফেট অবশেষে মাঠে ফিরেছেন। না, কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে নয়, এমনকি কোনো ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি বা লিস্ট ‘এ’ ম্যাচেও নয়। ব্রাফেট যোগ দিয়েছেন নোল অ্যান্ড ডরিজ ক্রিকেট ক্লাবে। নামটা অপরিচিত ঠেকলে বলে ফেলা যাক, ১৮৯৬ সালে প্রতিষ্ঠিত এই ক্রিকেট ক্লাব বার্মিংহাম অ্যান্ড ডিস্ট্রিক্ট প্রিমিয়ার লিগে খেলে। দলটির মূল দলসহ চারটি দল শনিবার ক্রিকেট খেলতে নামে, আর একটি দল সত্যিকার অর্থেই ‘সানডে লিগ’ ক্রিকেট খেলে। ব্রাথেট অবশ্য মূল দলেই খেলছেন।

সে সুবাদে তাঁর নোল অ্যান্ড ডরিজ অভিষেকটা হয়েছে শনিবার। বেন স্টোকসকে টানা চার ছক্কা মারা এক ক্রিকেটারকে নিজেদের পেয়ে দলটি খুশিতে ‘বাকবাকুম’ করছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ‘কার্লোস ব্রাফেটের ঘর’ বলে নিজেদের পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে। অভিষেকটা অবশ্য একদম যাচ্ছেতাই হয়েছে ব্রাফেটের।

বল করতে এসে এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার উদারহস্তে রান বিলিয়েছেন। মাত্র ৪ ওভারেই ৩১ রান দিয়েছেন, পাননি কোনো উইকেট। ব্রাফেটের এমন উদারতা কাজে লাগাতে পারেনি প্রতিপক্ষ লিমিংটন ক্রিকেট ক্লাব। ৫০ ওভারে মাত্র ২২৮ রান তুলেছিল দলটি। সে রান তাড়া করতে নেমে ৭৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে নোল অ্যান্ড ডরিজ। তখন মাঠে নামেন ব্রাফেট। তাঁকে বল করছিলেন স্পিনার দিনুক দা সিলভা। এই অফ স্পিনার রীতিমতো হাফভলি দিয়েছিলেন। সেটা সর্বশক্তি দিয়ে মারতে গিয়ে সীমানায় ধরা পড়েছেন ব্রাফেট। প্রথম বলেই শূন্য!

default-image

কিন্তু উইন্ডিজ অলরাউন্ডারের দুর্ভাগ্য সেখানেই শেষ হয়নি। ব্রাফেটের টুইট থেকেই জেনে নেওয়া যাক বাকিটা, ‘চোট কাটিয়ে ওঠার পর ছয় মাসে প্রথমবার বল করলাম... (আবর্জনার ইমোটিকন), একটা লং হপে প্রথম বলেই শূন্য... (মন খারাপের ইমোটিকন), গাড়ি চুরি... (রাগের ইমোটিকন)।’

তবে এসব ঘটনা যে তাঁকে কাবু করেনি সেটাও জানিয়েছেন। গতকাল ইস্টার সানডেতে দেওয়া সেই টুইটেই যোগ করে দিয়েছেন, ‘কিন্তু আজ সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখলাম, সূর্য আলো ছড়াচ্ছে এবং সবাইকে ধন্যবাদ। সবাইকে ইস্টারের শুভেচ্ছা।’

ম্যাচে অবশ্য পরশু ১২ রানে হেরেছে ব্রাফেটের দল

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন