লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন রিজওয়ান।
লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন রিজওয়ান। ছবি: এএফপি

রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে দাপট বোলাররাই দেখাচ্ছেন। আর দুই দলের ব্যাটিংয়ের যা লড়াই, সেটা হচ্ছে ভিন্ন প্রান্তে। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে টপ অর্ডারেই যা রান আসছে, ওদিকে পাকিস্তানের মূল ভরসা লেট অর্ডার! আজ তৃতীয় দিনেও সেই লেট অর্ডারই পাকিস্তানের মুখ রক্ষা করল।

মূল ব্যাটিং ভরসারা সবাই ফিরে যাওয়ার পরও লড়াই চালিয়ে গেছেন মোহাম্মদ রিজওয়ান ও ফাহিম আশরাফ। এ দুজনের সুবাদেই ম্যাচে ফিরে আশার স্বপ্নটা ধাক্কা খেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার। ৬ উইকেটে তৃতীয় দিন শেষ করেছে পাকিস্তান। প্রথম ইনিংসের লিড মিলিয়ে ২০০ রানে এগিয়ে আছে স্বাগতিক দল। সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যানদের যে পারফরম্যান্স, তাতে এটাই জয়ের জন্য যথেষ্ট হওয়ার কথা। চলমান টেস্টে প্রথম ইনিংসে ২০১ রানে গুটিয়ে গেছে প্রোটিয়ারা।

বিজ্ঞাপন
default-image

উইকেটে বল নিচু হয়ে আসছে। দক্ষিণ আফ্রিকান বোলাররাও শেষ বিন্দু দিয়ে লড়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন। পাকিস্তান ইনিংসে তাই প্রথম ২৫ বলে কোনো রান হয়নি। বরং ২৫তম বলে আউট হয়ে গেছেন ইমরান বাট। বাকি সময়টা অবশ্য প্রোটিয়া স্পিনাররাই দাপট দেখালেন। প্রথমে কেশব মহারাজ টপ অর্ডারে আতঙ্ক ছড়ালেন। পরে জর্জ লিন্ডে পাকিস্তানের মিডল অর্ডার ধসিয়ে দিলেন।

রাবাদার বলে বাটের আউটের পর আর উইকেটের দেখা মিলছিল না। মহারাজ এসে প্রথমে বিদায় দিলেন আবিদ আলীকে। গুছিয়ে ওঠার আগেই চলে গেলেন বাবর আজমও। লিন্ডে এসে সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রতিরোধের দুই নায়ক আজহার আলী ও ফাওয়াদ আলমকেও তুলে নিলেন। ৭৬ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসল পাকিস্তান। প্রথম ইনিংসে পাওয়া ৭১ রানের লিডটা তখন খুব কম মনে হচ্ছিল।

default-image

রিজওয়ান ও প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলা আশরাফ দাঁড়িয়ে গেলেন। দুজনে মিলে এনে দিলেন মূল্যবান ৫২টি রান। দিনের খেলা শেষ হওয়ার আগের ওভারে লিন্ডের বলে আশরাফ (২৯) ফিরে গেলেও রয়ে গেছেন রিজওয়ান। দলের লিডকে এখন যত দূর বাড়ানো যায়, সে লক্ষ্যেই কাল মাঠে নামবেন এই উইকেটরক্ষক। ২৮ রানে অপরাজিত রিজওয়ানের সঙ্গে আছেন হাসান আলী।

দিনের শুরুতে এই হাসান আলীই ছিলেন নায়ক। ৪ উইকেটে ১০৬ রান নিয়ে দিন শুরু করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। শুরুতেই অধিনায়ক কুইন্টন ডি কককে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। ৫০ রানের জুটিতে ধাক্কাটা সামলে নিয়েছিলেন মুল্ডার ও বাভুমা। কিন্তু ব্যক্তিগত ৩৩ রানে মুল্ডার রানআউট হতেই সর্বনাশের শুরু সফরকারীদের। এক প্রান্তে টেম্বা বাভুমা (৪৪*) দাঁড়িয়ে রইলেন, অন্য প্রান্তে উইকেট তুলে নিতে লাগলেন হাসান আলী। ৩৭ রানে শেষ ৫ উইকেট হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ৫৪ রানে ৫ উইকেট পেয়েছেন এই পেসার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
পাকিস্তান:
২৭২ ও ১২৯/৬ (আজহার ৩৩, আশরাফ ২৯, রিজওয়ান ২৮*; লিন্ডে ১২/৩, মহারাজ ৭৪/২)
দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংস: ২০১ (বাভুমা ৪৪*, মুল্ডার ৩৩, মার্করাম ৩২; হাসান ৫৪/৫, আশরাফ ২০/১)

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন