বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কাল তাই ভারতের ইনিংসের মাঝপথেই ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণ হয়ে গিয়েছিল। এতটা সহজে ভারতকে হারাবেন, ভাবতেও পারেননি ম্যাচসেরা ইশ সোধি।


ট্রেন্ট বোল্ট, ইশ সোধিরা কাল নিয়মিত উইকেট তুলে নিয়েছেন। ওদিকে মিচেল স্যান্টনার ৪ ওভারে ১৫ রান দিয়ে ভারতকে বেঁধে রেখেছিলেন। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলতে এসেছিলেন সোধি। বিরাট কোহলি-রোহিত শর্মাদের বিপক্ষে এমন দাপুটে জয় পাবেন, এটা ভেবেছিলেন কি না, এমন প্রশ্নের উত্তরে এই লেগ স্পিনারের সহজ স্বীকারোক্তি, ‘মোটেও না। ভারত দলে যত বিশ্বসেরা খেলোয়াড় আছে, এসব ম্যাচ এমন চিন্তা! গত কয়েক বছরে আমাদের বিপক্ষে ওদের রেকর্ডও খুব ভালো। বিশ্বের যেকোনো প্রান্তে যেকোনো কন্ডিশনে কঠিন প্রতিপক্ষ।’

পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে শেষ মুহূর্তে হেরে যাওয়ার পর সেমিফাইনালে যাওয়া নিয়ে একটু শঙ্কা সৃষ্টি হয়েছিল নিউজিল্যান্ড। পা হড়কালেই বাদ, এমন সমীকরণে ভারতের বিপক্ষে এমন প্রভাব বিস্তার করা জয়ে তাই তৃপ্ত সোধি, ‘এ অবশ্যই বিশেষ এক জয়। আমার ধারণা পাকিস্তানের বিপক্ষে ওই হারের পর ছেলেরা আবার দারুণভাবে ফিরেছে। আর এমন একটা জয় পাওয়া, সহজভাবে নেওয়ার বিষয় না এটা।’


ম্যাচ শেষে যশপ্রীত বুমরা বলেছেন, রাতে শিশির পড়ায় বড় রান দরকার ছিল ভারতের। আর সেটা নিশ্চিত করতে গিয়েই বেশি শট খেলেছেন ভারতের ব্যাটসম্যানরা। ওভাবেই শট খেলতে যাওয়াটাই কাল হয়েছে। ব্যাটিং ধস নেমেছিল ভারত ইনিংসে।

সোধিও টসের ভূমিকা দেখছেন ম্যাচে, ‘আমি জানি না সাইকোলজিক্যাল কোনো সুবিধা দেয় কি না। কিন্তু আজ সকালে পরিসংখ্যান দেখলাম, ১৮ ম্যাচের ১৪টিতেই রান তাড়া করে জিতেছে দলগুলো। কৌশলগত দিক থেকে, আমার মনে হয় দুই দলই আগে বল করতে চাইত এবং ক্রিকেট এমনই। টস যেকোনো একদিকে যেতে পারে। ভাগ্য ভালো, আজ আমাদের পক্ষে গেছে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন