বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ঘরের মাঠের বিশ্বকাপ সংযুক্ত আরব আমিরাতে আয়োজন করছে ভারত। তবু বিশ্বকাপের আগে আমিরাতেই আইপিএল হওয়ায় ভারতকেই ফেবারিট মানা হচ্ছিল। একে তো ভারতের সব খেলোয়াড় কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সময় পেয়েছেন, আর দলের সবাই আইপিএলে পর্যাপ্ত ম্যাচ অনুশীলনের সুযোগও পেয়েছেন। কিন্তু প্রথম দুই ম্যাচে ভারতের পারফরম্যান্স দেখে বিশ্বকাপ জেতার মতো কোনো দল মনে হয়নি তাঁদের।

দুই ম্যাচে ভারতের হয়ে বলার মতো পারফর্ম করেছেন শুধু বুমরা। পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ৩ ওভার বোলিং করে কোনো উইকেট না পেয়ে খরচ করেছেন ২২ রান। গতকাল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৪ ওভার বোলিং করে ২ উইকেট পেয়েছেন ১৯ রান খরচ করে। দুই ম্যাচে বুমরা ছাড়া আর কোনো বোলারই প্রতিপক্ষের উইকেট তুলে নিতে পারেননি। বাকি বোলারদের এভাবে ভুগতে দেখে কিংবদন্তি শ্রীলঙ্কান স্পিনার মুত্তিয়া মুরালিধরনের মনে হয়েছে, ভারত বুমরার ওপর বড় বেশি নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে।

default-image

আইসিসির এক কলামে এ নিয়ে মুরালিধরন প্রথমে বড় দলগুলোর মধ্যকার একটা মিল নিয়ে কথা বলেন, ‘একটা বিষয় পরিষ্কার, এই বিশ্বকাপে যে দলগুলো শিরোপাপ্রত্যাশী, তাদের সবারই খুব ভালো বোলিং আক্রমণ রয়েছে। পাকিস্তানের হারিস রউফ, শাহিন আফ্রিদি আছে, যারা ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার গতিতে ইয়র্কার দিতে পারে, আবার স্লোয়ারও করতে পারে। এ রকম কন্ডিশনে একটু বেশি গতি অনেক বড় পার্থক্য গড়ে দিতে পারে। ফলে, প্রতিপক্ষের জন্য তারা খুবই বিপজ্জনক।’

এরপর ভারতকে নিয়ে তাঁর দুশ্চিন্তার কথা জানান টেস্ট ও ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি এই বোলার, ‘এই বিষয়ে যে দলকে নিয়ে আমি চিন্তিত, সেই দল হলো ভারত। বুমরা ম্যাচ জেতানোর মতো একজন বোলার, কিন্তু এই মুহূর্তে ভারতের বোলিং আক্রমণ তার ওপর একটু বেশিই নির্ভরশীল বলে মনে হচ্ছে। ওদের একাদশে একজন লেগ স্পিনার থাকলে বোধ হয় ভালো হতো, অথবা রবিচন্দ্রন অশ্বিনের মতো অভিজ্ঞ স্পিনারও ঢুকতে পারে।’

default-image

ভারত দলে অবশ্য একজন লেগ স্পিনার খেলছেন। কিন্তু বরুণ চক্রবর্তী দুই ম্যাচেই কোনো প্রভাব ফেলতে পারেননি। এ অবস্থায় অশ্বিনকেও দলে নেওয়া হলে আরেকটি সমস্যা যে সৃষ্টি হবে, সেটাও মানছেন মুরালিধরন, ‘এ রকম করলে হয়তো তারা দুজনের বেশি পেসার নিতে পারবে না এবং হার্দিক পান্ডিয়ার বোলিংয়ের ওপর তাদের ভরসা করতে হবে। মূল ব্যাপারটা হলো দলে সঠিক ভারসাম্য খুঁজে বের করা এবং বুমরার ওপর থেকে নির্ভরতা কমানো।’

পরপর দুই ম্যাচ হেরে ভারত এখন গ্রুপ–২–এর ৫ নম্বর স্থানে, তাদের নিচে আছে শুধু স্কটল্যান্ড। সেমিফাইনালে যাওয়ার জন্য এখন ভারতের শুধু নিজের জিতলেই চলবে না, বাকি দলগুলোর ফলাফলের দিকেও চেয়ে থাকতে হবে।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন