বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রমিজ বলেন, ‘আইসিসির তহবিলের ওপর নির্ভর করে ৫০ শতাংশ কাজ হয় পিসিবির। এদিকে আইসিসির তহবিলের ৯০ শতাংশ অর্থের জোগানদাতা ভারত। আমার ভয় হয়, ভারত আইসিসির তহবিলে অবদান রাখা বন্ধ করলে পিসিবি অচল হয়ে পড়তে পারে। কারণ, আইসিসির তহবিলে পিসিবির অবদান শূন্য শতাংশ। আমি পাকিস্তান ক্রিকেটকে শক্তিশালী করতে চাই।’

টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তান ভালো করতে পারলে ক্রিকেটের বাজারেও হয়তো আয় বাড়বে পিসিবির। ২৪ অক্টোবর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের মুখোমুখি হয়ে টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে পাকিস্তান।

এ ম্যাচ সামনে রেখে পাকিস্তান ক্রিকেটের জন্য আশার কথা শোনালেন রমিজ রাজা, ‘এক বড় বিনিয়োগকারী আমাকে বলেছেন, টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তান ভারতকে হারাতে পারলে পিসিবির জন্য ব্ল্যাঙ্ক চেক (সই করা চেক, টাকার অঙ্ক নিজের মতো বসিয়ে নেওয়া যায়) তৈরি থাকবে।’

কিছুদিন আগে নিরাপত্তা–শঙ্কার অজুহাতে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড দলের পাকিস্তান সফর বাতিল করার পেছনেও আর্থিক কারণ দেখছেন পিসিবি চেয়ারম্যান। তাঁর মতে, পিসিবির আর্থিক কাঠামো মজবুত থাকলে কোনো দলই পাকিস্তান সফর বাতিল করত না।

তিনি বলেন, ‘আমাদের ক্রিকেট অর্থনীতি শক্তিশালী হলে ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের মতো কোনো দল আমাদের ব্যবহার করে আবর্জনার পাত্রে ছুড়ে ফেলতে পারত না। সেরা ক্রিকেট দল ও সেরা ক্রিকেট অর্থনীতি—এ দুটোই মূল চ্যালেঞ্জ।’

পাকিস্তানের ঘরোয়া ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক বাড়ানোর কথাও বললেন রমিজ রাজা, ‘আমরা ঘরোয়া ক্রিকেটারদের বেতন বাড়িয়েছি। আমরা চাই, বছরে তাঁরা অন্তত ৪০ লাখ রুপি আয় করুক। পিসিবি এ নিয়ে স্পনসরও খুঁজছে।’

গত মাসে পিসিবি চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পান পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার রমিজ রাজা। এ পদে তাঁর মেয়াদ তিন বছর। পিসিবির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই পাকিস্তান ক্রিকেটকে আর্থিকভাবে শক্তিশালী করার কথা বারবার বলছেন তিনি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন