দর্শকের বর্ণবাদী মন্তব্যের পর আম্পায়ারের কাছে অভিযোগ করেন ভারতের ক্রিকেটাররা। খেলা বন্ধ থাকে।
দর্শকের বর্ণবাদী মন্তব্যের পর আম্পায়ারের কাছে অভিযোগ করেন ভারতের ক্রিকেটাররা। খেলা বন্ধ থাকে। ছবি: এএফপি

ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার সিরিজ ক্রিকেটীয় দৃষ্টিকোণ থেকে ছিল দুর্দান্ত। অনেক দিন পর ক্রিকেটপ্রেমীরা দারুণ একটা সিরিজ উপভোগ করেছেন। রোমাঞ্চ, নাটকীয়তা আর দারুণ পারফরম্যান্সে ভরপুর এই সিরিজ কিন্তু কলঙ্কমুক্ত নয়। ভারতীয় ক্রিকেটারদের লক্ষ্য করে একাধিকবার বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য ছুটে এসেছে সিডনি, ব্রিসবেনের গ্যালারি থেকে।

সিডনি টেস্টে তো বর্ণবাদী দর্শকদের একটি দলকে পুলিশ ডেকে মাঠ থেকেই বের করে দিতে হয়েছিল। ব্যাপারটি গড়িয়েছে আইসিসি অবধিও। কিন্তু অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট বোর্ড (সিএ) আইসিসির কাছে দেওয়া প্রতিবেদনে বলেছে, সিডনি টেস্টে আসলে কে বা কারা ভারতীয় ক্রিকেটারদের লক্ষ্য করে বর্ণবাদী মন্তব্য করেছে, তাদের চিহ্নিত করা যাচ্ছে না। তবে ভারতীয় ক্রিকেটারদের সঙ্গে বর্ণবাদী আচরণ যে হয়েছিল, সেটি তারা স্বীকার করেছে।

বিজ্ঞাপন

সিডনি টেস্টের চতুর্থ দিন চা–বিরতির ঠিক আগে ঘটে বড় ঘটনাটি। ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ সিরাজকে ‘বানর’ বলে গালি দিচ্ছিল বর্ণবাদী দর্শকেরা। সিরাজ সেটি সঙ্গে সঙ্গে অধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানেকে জানান। দৃষ্টিগোচর করা হয় মাঠের আম্পায়ারদেরও। ভারতীয় ক্রিকেটাররা গ্যালারির কোন স্থান থেকে কটু মন্তব্য ভেসে এসেছে, সেটিও চিহ্নিত করে দেন।

default-image

পরে পুলিশ সেখানে গিয়ে কয়েকজন দর্শককে মাঠ থেকে বের করে দেয়। টেস্টের তৃতীয় দিনও পেসার যশপ্রীত বুমরাকে লক্ষ্য করে ‘কুকুর’ ‘বানর’ ইত্যাদি মন্তব্য করা হয়। বুমরাও সেই ঘটনা আম্পায়ারদের নজরে এনেছিলেন।

অস্ট্রেলীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বোর্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত লোকজন বিষয়টি নিয়ে এত দিন বিশদ তদন্ত করেও কাউকে অভিযুক্ত করতে পারেনি। তাঁরা চেষ্টা করছিলেন নির্দিষ্ট করে কোন দর্শকের মুখ থেকে এমন বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য বেরিয়েছে, সেটি খুঁজে বের করতে। কিন্তু আইসিসিকে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছে, সেটি করতে ব্যর্থ হয়েছেন তাদের গোয়েন্দারা। তবে তাঁরা স্বীকার করেছেন, সিডনি টেস্টে ভারতীয় ক্রিকেটাররা বর্ণবাদের শিকার হয়েছেন।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে আইসিসি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য ১৪ দিনের সময় বেঁধে দিয়েছিল। নিউ সাউথ ওয়েলস পুলিশও বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছে।
ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর আইসিসির ইন্টিগ্রিটি প্রধান শন ক্যারল বলেছেন, ‘ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া নিশ্চিত করেছে, সিডনি টেস্টে ভারতীয় ক্রিকেট দল বর্ণবাদের শিকার হয়েছিল।’

সিডনি টেস্টের চতুর্থ দিন যে ছয়জন দর্শককে মাঠ থেকে বের করে দেওয়া হয়েছিল, তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করেও তেমন কিছু পাওয়া যায়নি। তাঁরা বর্ণবিদ্বেষের বিষয়গুলো অস্বীকারই করেছেন। ভারতীয় ক্রিকেটাররাও নির্দিষ্ট কাউকে চিহ্নিত করতে পারেননি।
নিউ সাউথ ওয়েলস পুলিশ মাঠ থেকে বহিষ্কৃত সেই ছয় দর্শককে জিজ্ঞাসাবাদ করে জেনেছে, সেই সময় তাঁরা গান গাইছিলেন। সিরাজ সেই সময় গ্যালারির সামনে ফিল্ডিং করতে এসেছিলেন। কিন্তু সেই গানে বর্ণবাদী কিছু ছিল কি না, যা সিরাজকে আহত করেছিল, সেটি প্রমাণ করা যাচ্ছে না। এই ছয় দর্শককে তাই অভিযোগ থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে।

বর্ণবাদের এই ঘটনায় ক্রিকেট দুনিয়ায় ওঠে নিন্দার ঝড়। ঘটনার পরে অবশ্য ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) ক্ষমা প্রার্থনা করেছিল।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন