default-image

জোগা সাঙ্ঘা কি এতখানি ভেবেছিলেন? ১৯৯৭ সালে যখন ভারত থেকে পাড়ি জমান সিডনিতে, পুরোনো পেশা ট্যাক্সি চালানোটা ছাড়তে পারেননি। ট্যাক্সি চালিয়েই অবশেষে ছেলের স্বপ্ন পূরণ করেছেন। ছেলে তানভীর সাঙ্ঘাকে ক্রিকেটার বানাতে ট্যাক্সিটা এখনো চালিয়ে যাচ্ছেন। অস্ট্রেলিয়ার আসন্ন নিউজিল্যান্ড সফরের টি-টোয়েন্টি দলে এবার ডাক পেয়েছেন লেগ স্পিনার তানভীর।

চলতি বিগ ব্যাশ লিগে সিডনি থান্ডারের হয়ে মাঠ মাতাচ্ছেন তানভীর। দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচকদের মন জয় করে নিয়েছেন। সিডনি থান্ডারের হয়ে ২১ উইকেট নিয়ে হয়েছেন টুর্নামেন্টের তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি। ছাপিয়ে গেছেন রশিদ খান ও অ্যাডাম জাম্পাকে। তানভীরের উইকেট শিকারের তালিকায় আছেন অ্যারন ফিঞ্চ, পিটার হ্যান্ডসকম্বদের মতো ব্যাটসম্যান!

বিজ্ঞাপন

মাত্র ১৯ বছর বয়সেই অস্ট্রেলিয়ার ব্যাগি গ্রিন টুপি পরার অপেক্ষায় তানভীর। আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে অস্ট্রেলিয়ার নিউজিল্যান্ড সফর। সেখানে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে অস্ট্রেলিয়া।

তানভীরের বাবা জোগা সাঙ্ঘা পাঞ্জাবের জলন্ধরের রহিমপুরের কালা সাঙ্ঘাইয়ান গ্রাম থেকে চলে যান সিডনিতে। অস্ট্রেলিয়াতেই জন্ম হয় তানভীরের। একসময় জোগা ছেলেকে ভর্তি করিয়ে দেন ইস্ট হিল বয়েজ স্কুলে। যে স্কুলে একসময় পড়েছেন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের ‘ওয়াহ ব্রাদার্স’ স্টিভ ওয়াহ ও মার্ক ওয়াহ।

ছোটবেলা থেকেই খেলাধুলায় প্রচণ্ড আগ্রহ ছিল তানভীরের। ফুটবল, কাবাডির পাশাপাশি ক্রিকেটের প্রতিও ঝোঁক ছিল তাঁর।

একপর্যায়ে সবকিছু বাদ দিয়ে ক্রিকেটেই ঝুঁকে পড়েন তানভীর। শুরুতে পেসার হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন। কিন্তু গায়ে জোর ছিল কম। বলে গতি আনতে পারতেন না। এরপর কোচের পরামর্শে স্পিনার হয়ে যান তানভীর।

default-image

বয়সভিত্তিক দলগুলোতে একসময় নিজের সহজাত প্রতিভা দেখানোর শুরু তানভীরের। গত বছর দক্ষিণ আফ্রিকায় হওয়া অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে ৬ ম্যাচে ১৫ উইকেট পেয়েছেন। টুর্নামেন্টে অস্ট্রেলিয়ার সর্বোচ্চ উইকেটশিকারিই তানভীর।

অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি অধিনায়ক রিকি পন্টিং মুগ্ধ তানভীরের খেলায়, ‘ও খুবই আত্মবিশ্বাসী এক তরুণ। সে জানে, সে কী করছে। খুবই ভালো বল করছে। ওকে (জাতীয় দলে ঢোকার) প্রক্রিয়ার জন্য বিবেচনা করতে পারেন তাঁরা (অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচক)।’

অবশ্য তানভীরই অস্ট্রেলিয়া দলে খেলা প্রথম ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার নন। এর আগে অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে খেলেছিলেন গুরিন্দর সান্ধু।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন