কদিন আগে লিজেন্ডস ক্রিকেটে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে শচীন টেন্ডুলকার।
কদিন আগে লিজেন্ডস ক্রিকেটে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে শচীন টেন্ডুলকার। ছবি: টুইটার

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড টুইট করেছে, ‘হোয়াট আ চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেটার!’ ভারতের মেয়েদের ক্রিকেটের অধিনায়ক মিতালি রাজের টুইটারেও বইছে শুভেচ্ছার বন্যা। আজ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ক্যারিয়ারের ২১২তম ওয়ানডে খেলতে নেমেছিলেন মিতালি। এই ম্যাচে একটা অনন্য রেকর্ড গড়েছেন, প্রথম ভারতীয় নারী ক্রিকেটার হিসেবে ছুঁয়েছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০ হাজার রানের মাইলফলক।

অ্যান বশের ফুলার লেংথের বলটা ফ্লিক করে স্কয়ার লেগের দিকে দিতেই চার রান যোগ হয় মিতালির নামের পাশে। এতেই তিনি পৌঁছে যান এই ১০ হাজারি ক্লাবে।

বিজ্ঞাপন

মিতালির আনন্দটা অবশ্য খুব স্থায়ী হয়নি। পরের বলেই বশের ফুলটসটা তুলে দেন মিড উইকেটে, মিনিয়ন ডু প্রিজের হাতে ধরা পড়ে ৩৬ রানে ফেরেন প্যাভিলিয়নে।

২১২ ওয়ানডে খেলে মিতালির রান ৬৯৭৪। ১০ টেস্টে করেছেন ৬৬৩ রান আর ৮৯ টি-টোয়েন্টিতে ২৩৬৪ রান। মিতালির আগে একমাত্র ইংল্যান্ডের শার্লট এডওয়ার্ডসই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০ হাজার রানের মাইলফলক ছুঁয়েছেন। মিতালির পরই আছেন নিউজিল্যান্ডের সুজি বেটস, তাঁর রান ৭৮৪৯।

মিতালির এমন কীর্তির পর তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন শচীন টেন্ডুলকার। টুইটে এই কিংবদন্তি ক্রিকেটার লিখেছেন, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০ হাজার রান করায় অন্তর থেকে অভিনন্দন তোমাকে। দারুণ কীর্তি গড়েছ। আরও ভালো খেলতে থাকো।’

মিতালি আবার সেটি রি-টুইট করে লিখেছেন, 'শচীন টেন্ডুলকারের কাছ থেকে শুভেচ্ছা পাওয়া সব সময়ই বিশেষ কিছু।'

আইপিএলের দল চেন্নাই সুপার কিংস ও মুম্বাই ইন্ডিয়ানসও শুভেচ্ছা জানিয়েছে মিতালিকে।

১৯৯৯ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক মিতালির। ওয়ানডেতে করেছেন ৭টি সেঞ্চুরি ও ৫৪টি হাফ সেঞ্চুরি। ২০১৯ সালে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে অবসর নেন রাজস্থানের এই ক্রিকেটার। টি-টোয়েন্টিতে করেছেন ১৭টি হাফ সেঞ্চুরি। সর্বোচ্চ ৯৭ রান আছে ক্রিকেটের এই ছোট সংস্করণে।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন