default-image
>ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ার পরও ভারতে অবস্থান করায় জরিমানা গুনলেন বাংলাদেশের ওপেনার সাইফ হাসান

ভারত সফর দিয়ে বাংলাদেশের টেস্ট স্কোয়াডে প্রথমবারের মতো ডাক পান সাইফ হাসান। ইন্দোর টেস্টে খেলতে না পারলেও তখন পর্যন্ত সময়টা খারাপ কাটেনি এ ওপেনারের। কিন্তু কলকাতা টেস্টের আগ থেকে এ পর্যন্ত সময়টুকু ভুলে থাকতেই চাইবেন তিনি। চোটের কারণে কলকাতা টেস্টে অভিষেক হয়নি। জাতীয় দলে খেলার অপেক্ষাটা বেড়েছে। এরপর ভিসা জটিলতায় দেশে ফিরতে পারেননি সতীর্থদের সঙ্গে।

এখানেই শেষ নয়। ভিসা জটিলতার জন্য আক্কেলসেলামিও দিতে হয়েছে সাইফকে। ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ার পরও ভারতে অবস্থান করায় ২১,৬০০ রুপি (বাংলাদেশি মুদ্রায় ২৫ হাজার ৬১৫ টাকা) জরিমানা গুনতে হয়েছে বাংলাদেশের এ ক্রিকেটারকে।

ভারতের কাছে ২-০ ব্যবধানে হেরে যাওয়া টেস্ট সিরিজে বাংলাদেশ দলের ব্যাক আপ ওপেনার হিসেবে সফরে গিয়েছিলেন সাইফ। তাঁর ভারতীয় ভিসার ছয় মাস মেয়াদ শেষ হয়েছে রোববার। এর পর দেশে ফিরতে সুভাষ চন্দ্র বসু বিমানবন্দরে যান সাইফ। কিন্তু ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ায় বোর্ডিং পাস পাননি। এরপর জরিমানা দিয়ে কাল দেশে ফিরেছেন এ ক্রিকেটার। সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার তৌফিক হাসান বলেন, ‘বিমানবন্দরে আসার পর সে টের পায় দু-দিন আগেই ভিসার মেয়াদ ফুরিয়েছে। ফ্লাইট বুক করা থাকলেও এ জন্য সে বিমানে উঠতে পারেনি। নতুন নিয়ম অনুযায়ী, তাকে জরিমানা দিতে হয়েছে।’

সাইফের দেশে ফেরার ব্যবস্থা করেছে ভারতীয় হাই কমিশন। তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার বলেন, ‘তার ভিসা করে দেশে ফেরার বন্দোবস্ত করায় ভারতীয় হাই কমিশনকে ধন্যবাদ। কালই সে দেশে রওনা দিয়েছে।’ ভারত সফর সামনে রেখে গোটা দলের ভিসা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সাইফ ভারতীয় ভিসা পান গত জুনেই। তবে ভারতে থাকতেই যে ভিসার মেয়াদ ফুরিয়েছে তা বিসিবির সংশ্লিষ্ট মহল কিংবা সাইফ নিজেও টের পাননি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন