ভারত-ইংল্যান্ডের ম্যাচ দেখে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন ভন।
ভারত-ইংল্যান্ডের ম্যাচ দেখে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন ভন। ছবি: এএফপি

কোনো একটা ম্যাচ হচ্ছে আর মাইকেল ভনের কোনো টুইট থাকবে না? তার ওপর যেখানে মাঠের দুই দলের একটি ইংল্যান্ড? এ তো যেন অকল্পনীয় এক ব্যাপার!

আহমেদাবাদে কাল ভারত আর ইংল্যান্ডের মধ্যে সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতেও ভনের টুইট বাদ গেল না। ইংল্যান্ডের এবারের ভারত সফরে টেস্ট সিরিজের সময় ভারতের ঘূর্ণিবিষ নিশ্চিত করা উইকেট নিয়ে অনেক কৌতুক করেছেন ভন, মেরেছেন শত খোঁচা। পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের তৃতীয়টিতে কাল ইংল্যান্ডের জয়ের পর এবার ভনের কৌতুক ভারতের মাটিতে এই বছরের শেষ দিকে হতে যাওয়া বিশ্বকাপ নিয়ে।

বলতে গেলে বিশ্বকাপ কে জিতবে, সেটি যেন এখনই দিব্যদৃষ্টিতে দেখতে পাচ্ছেন ভন! ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়কের চোখে, যারা টস জিতবে, তারাই জিতবে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।

বিজ্ঞাপন
default-image

আহমেদাবাদে কাল ভারতকে ৮ উইকেটে হারিয়ে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে ইংল্যান্ড। টি-টোয়েন্টি সিরিজে এখন পর্যন্ত তিন ম্যাচের তিনটিতেই টস জিতে প্রতিপক্ষকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠানো দল জিতে গেল ম্যাচ। প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ড জিতেছিল ৮ উইকেটে, পরের ম্যাচে ভারত জেতে ৭ উইকেটে। কাল আবার ইংল্যান্ড টস জেতার ফল পেল ম্যাচ জিতে।

ভন তাই টুইটারে মজা করে লিখেছেন, ‘তার মানে হচ্ছে যারা টসে সবচেয়ে ভালো করবে, ভারতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতবে তারাই।’

টস জিতে কাল ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠানোর সিদ্ধান্তটা নিয়ে মোটেও সংশয়ে পড়তে হয়নি ইংল্যান্ড অধিনায়ক এউইন মরগানকে। পাওয়ার প্লে-র ৬ ওভারের মধ্যেই ২৪ রানে ভারতের প্রথম তিন ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে দেন ইংলিশ ফাস্ট বোলাররা।

ঋষভ পন্ত (২০ বলে ২৫) সঙ্গে মিলে এরপর ভারতকে ম্যাচে ফেরানোর দায়িত্ব নেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। পন্ত খুব বেশি দূর যেতে না পারলেও কোহলি খেলেন চোখধাঁধানো এক ইনিংস। ৪৬ বলে ৮ চার ও ৪ ছক্কায় শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৭৭ রানে, তাতে ভারত ইংল্যান্ডকে দিতে পেরেছিল ১৫৭ রানের লক্ষ্য।

কিন্তু কোহলির মতো চাপের মুখে না হলেও রানের হিসাবে কোহলির ইনিংসকেও হার মানানো এক ইনিংস খেলেন ইংল্যান্ড ওপেনার জস বাটলার। ৫ চার ও ৪ ছক্কায় ৮৩ রান করে অপরাজিত ছিলেন, সে পথে বল খেলেছেন মাত্র ৫২টি। চারে নামা জনি বেয়ারস্টো (২৮ বলে অপরাজিত ৪০) এসে বাটলারকে দারুণ সঙ্গ দেন। দুজন ইংল্যান্ডকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন।

আগের দুই ম্যাচের পর এ ম্যাচেও টস জিতে পরে ব্যাটিং নেওয়া দলকে জিততে দেখে ভন মজা করতে পারেন, তবে ভারত অধিনায়ক কোহলি দলের হারের পেছনে টসকে এত গুরুত্ব দিতে নারাজ। ভারত অধিনায়কের সোজা কথা, ‘আপনি যদি টস হেরে যান, তাহলে আপনাকে যেটা করতে বলা হবে তা-ই করতে হবে। নতুন বলে ইংল্যান্ডের বোলাররা দুর্দান্ত বোলিং করেছে। প্রথম ছয় ওভারে ওরা আমাদের কিছুই করতে দেয়নি, জীবনটা তেজপাতা করে দিচ্ছিল।’

বিজ্ঞাপন
default-image

ইংলিশ বোলারদের প্রশংসার পাশাপাশি হারের বিশ্লেষণে নিজের দলকেও কাঠগড়ায় তুললেন কোহলি, ‘আমরা পাল্টা লড়াই করার চেষ্টা করেছি, কিন্তু ম্যাচের দ্বিতীয় অংশে (ইংল্যান্ডের ব্যাটিংয়ের সময়) মাঠে আমাদের শারীরিক ভাষা যেমন ছিল, আমার মনে হয় না সেটাকে কোনোভাবে গ্রহণযোগ্য বলা যায়। ১৬০ রানের পুঁজি নিয়ে লড়াই করার সময়ে মাঠে আপনার লড়াই করার তাড়না, শক্তি ভরপুর থাকতে হয়, সেটা আজ কম ছিল আমাদের।’

ভারত-ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি সিরিজের সব ম্যাচই আহমেদাবাদে। আগামীকাল হবে চতুর্থ টি-টোয়েন্টি। করোনার সংক্রমণ হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় গতকাল হয়ে যাওয়া তৃতীয় ম্যাচ থেকে শুরু করে সিরিজের বাকি টি-টোয়েন্টিগুলো দর্শকশূন্য মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন